তিন নভোচারীর মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী। তাঁরা হলেন ঝাই ঝিগাং, ইয়ে গুয়াংফু ও ওয়াং ইয়াপিং। চীনের তিয়ানগং মহাকাশ স্টেশনে তিয়ানে মডিউলে ছয় মাস থাকার পর আজ সকাল ১০টার কিছুক্ষণ আগে ছোট একটি মহাকাশযানে তাঁরা পৃথিবীতে অবতরণ করেন।

সিসিটিভির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘সেনজাও-১৩-এর পৃথিবীতে ফেরার মহাকাশযানটি আজ সফলভাবে অবতরণ করেছে।’ গত বছরের অক্টোবরে এ তিন চীনা নভোচারী চীনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে গোবি মরুভূমির একটি উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে মহাকাশে রওনা করেন। ২০২১-২২ সালে মানুষ নিয়ে চীনের প্রথম স্থায়ী মহাকাশ স্টেশনে তিয়ানগংয়ে যে চারটি মিশন পাঠানোর কথা, এটি ছিল দ্বিতীয়। তিয়ানগং শব্দের অর্থ হলো ‘স্বর্গীয় স্থান’।

ওয়াং ও তাঁর সহকর্মী ঝাই ছয় ঘণ্টার প্রচেষ্টায় মহাকাশ স্টেশনের সরঞ্জাম স্থাপন করার পর গত নভেম্বরে প্রথম চীনা নারী হিসেবে ওয়াং ইয়াপিং মহাকাশে হাঁটেন। এ তিন নভোচারী দুবার মহাকাশে হেঁটে কিছু বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা চালান।

আগামী কয়েক মাসের মধ্যে সেনজাও-১৪ নভোযানে করে মহাকাশে মানুষ নিয়ে আরও একটি মিশন পাঠানোর কথা রয়েছে চীনের। নতুন মিশনে চীনের যেসব নভোচারী যাবেন, কয়েক সপ্তাহ ধরে তাঁদের জন্যই সবকিছু গুছিয়ে রাখা এবং কেবিন ও অন্যান্য সরঞ্জাম প্রস্তুত করার কাজ করছিলেন এই তিন নভোচারী।

এর আগে মহাকাশে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় মানুষ নিয়ে চীনের মিশন পরিচালিত করার রেকর্ড হয়েছে গত বছর পাঠানো সেনজাও-১২–এর মাধ্যমে। মিশনটি ৯২ দিন মহাকাশে ছিল। সিসিটিভির ওই প্রতিবেদনে এ সম্পর্কে বলা হচ্ছে, ভবিষ্যতে চীনের মহাকাশ স্টেশনে নভোচারীদের সর্বনিম্ন থাকার মেয়াদ হবে ছয় মাস।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন