বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, চীনের উদ্যোগে বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের (বিআরআই) অধীনে বিভিন্ন দেশে ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। এসবের মধ্যে রয়েছে সড়ক বন্দর ও কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। বিআরআইয়ের অধীনে ভিয়েতনাম ও ইন্দোনেশিয়ায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তন রোধে প্যারিস চুক্তি অনুসারে কার্বন নিঃসরণ কমাতে চাপ রয়েছে চীনের ওপর। মূলত কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে অর্থায়ন বন্ধেই চীনকে চাপ দেওয়া হচ্ছে। কারণ, সবচেয়ে বেশি গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণ করে চীন। এ ছাড়া বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের ওপর অনেক বেশি নির্ভরশীল দেশটি।

সি চিন পিং বলেন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও কার্বন নিঃসরণ কম হয় এমন বিদ্যুৎকেন্দ্র তৈরিতে উন্নয়শীল দেশগুলোকে অর্থ সাহায্য করবে চীন। চীনের বাইরে অন্য কোনো দেশে কয়লানির্ভর বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে অর্থায়ন করবে না তাঁর দেশ। তবে কীভাবে এই পদক্ষেপ নেওয়া হবে, তা নিয়ে কিছু জানাননি সি চিন পিং। চীনের প্রেসিডেন্টের এ ঘোষণা থেকে এটা স্পষ্ট হয়েছে, উন্নয়নশীল দেশগুলোয় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র তৈরিতে চীন যেসব উদ্যোগ নিয়েছিল তার রাশ টানা হবে।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন