বিজ্ঞাপন

কমিউনিস্ট পার্টি যে তাদের দলের সদস্যদের ওপর এ ধরনের বিধিনিষেধ এবারই প্রথম আরোপ করল, তা নয়। এর আগে ২০১৫ সালে দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে দলের কর্মীদের বেহিসাবি খাওয়া-পানীয়, গলফ ক্লাবে যোগ দেওয়া ও বেসরকারি ক্লাবে যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়।

চীন অবশ্য কয়েক বছর ধরেই জনগণকে জাঁকজমকপূর্ণ বিয়ের আয়োজন থেকে সরে সাদামাটা আয়োজনের আহ্বান জানিয়ে আসছে।

গত সপ্তাহে আরোপ করা নতুন নিয়ম অনুযায়ী জন্মদিন, কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি, গৃহপ্রবেশ উপলক্ষে কোনো অনুষ্ঠান করা যাবে না। আর এসব নিষেধাজ্ঞা এ মাস থেকে কার্যকর হবে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট নিয়ম করা হয়েছে।

উদাহরণ হিসেবে ইউনান প্রদেশের কাউন্টিতে সরকারি কর্মচারীদের বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে গেলে আগেভাগেই খরচের হিসাব ও অতিথি তালিকা স্থানীয় সরকারের কাছে দিতে হবে।

বিয়ের অনুষ্ঠানের খাবারের টেবিলের সংখ্যাও ২০টির বেশি হতে পারবে না। অতিথি সর্বোচ্চ ২০০ জন হতে পারবে। যদি আয়োজন রেস্টুরেন্টে হয়, তাহলে প্রত্যেক অতিথির পেছনে খাবারের খরচ ৫০ ইউয়ানের বেশি হতে পারবে না। আর যদি বাড়িতে আয়োজন হয় তাহলে টেবিলপ্রতি খরচ হতে পারবে সর্বোচ্চ ৩০০ ইউয়ান। বিয়ের গাড়িবহরেও ১০টির বেশি গাড়ি হতে পারবে না।

একইভাবে চীনের প্রথা অনুযায়ী অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় আসা অতিথিরা শোকার্ত পরিবারকে ‘শোকের অর্থ’ দেয়। এ আয়োজনও তিন দিনের বেশি সময় ধরে করা যাবে না। আর এ আয়োজন শেষ হওয়ার ১০ দিন পর সরকারের কাছে অনুষ্ঠানের বিস্তারিত তথ্য দিতে হবে।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন