বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মহাকাশ গবেষণায় বেশ অগ্রগতি হয়েছে চীনের। এর মধ্যে তিয়ানগং মহাকাশ স্টেশন স্থাপনকে একটি বড় সাফল্য হিসেবে ধরা হচ্ছে। এখান থেকেই মঙ্গলগ্রহে সফলভাবে মহাকাশযান পাঠানো হয়েছে, অভিযান চালানো হয়েছে চাঁদেও।

গত রোববার রাতে ৩১ বছর বয়সী ওয়াং ইয়াপিং ও তাঁর সহকর্মী ঝাই ঝিগ্যাং তিয়েনগংয়ের বাইরে পা রাখেন। এ সময় তাঁদের ক্যামেরার দিকে হাত নাড়াতে দেখা যায়। এরপর তাঁরা দুজন মিলে বেশ কিছু যন্ত্রাংশ স্থাপন করেন।

আজ সোমবার চায়না ম্যানড স্পেস এজেন্সি এক বিবৃতিতে জানায়, এটি শেনঝউ-১৩-এর ওই নভোচারীর জন্য মহাকাশ স্টেশনের বাইরে পা রাখার প্রথম ঘটনা। চীনের মহাকাশ গবেষণার ইতিহাসেও এই প্রথম কোনো নারী মহাকাশে হাঁটলেন। পুরো প্রক্রিয়াটি সফলভাবে শেষ হয়েছে।

সব ঠিকঠাক থাকলে কমপক্ষে ১০ বছর তিয়েনগং মহাকাশ স্টেশনটি কর্মক্ষম থাকবে বলে আশা চীনের। সেখানে এই মুহূর্তে অবস্থান করছেন ওয়াং ইয়াপিং ও ঝাই ঝিগ্যাং ছাড়াও ইয়ে গুয়াংফু নামের আরেক নভোচারী। কয়েক সপ্তাহ আগেই তাঁরা চীনের গোবি মরুভূমির জিউকুয়ান উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে তিয়ানগংয়ের উদ্দেশে পাড়ি জমান। এর আগেও একদল নভোচারী মহাকাশ স্টেশনটিতে অবস্থান করেছেন।
ওয়াংয়ের দলের বাকি দুই সদস্যের মধ্যে ঝাই ঝিগ্যাং অবশ্য আগেই মহাকাশে হেঁটেছেন। চীনের প্রথম নভোচারী হিসেবে ২০০৮ সালে মহাশূন্যে পা রাখেন যুদ্ধবিমানের সাবেক এই পাইলট। তিন সদস্যের দলটি আগামী ছয় মাস তিয়ানগংয়ে অবস্থান করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন