default-image

তাইওয়ানের সুন্দর সান মুন লেকে এক বছর আগে ঘুরতে গিয়েছিলেন চেন। নৌবিহারের সময় অসাবধানতায় চেনের মুঠোফোনটি লেকের পানিতে পড়ে যায়। ফোনটি পাওয়ার আশা ছেড়ে দেন চেন। এক বছর পর তিনি সেই ফোন ফিরে পেয়েছেন, তা–ও সচল অবস্থায়। খবরটা জানার পর আনন্দ আর উত্তেজনায় ঘুমাতে পারেননি চেন।

default-image

বিবিসির আজ শুক্রবারের খবরে জানা যায়, এক সপ্তাহ আগে সান মুন লেকে কাজ করা এক শ্রমিক চেনকে সুখবরটি দেন। তবে খবরটি চেনের জন্য যতটা সুখের, তাইওয়ানবাসীর জন্য ততটা নয়।

চেন বলেন, ফোনের ওয়াটারপ্রুফ কেসটি শুকনা মাটি দিয়ে ঢাকা ছিল। ওয়াটারপ্রুফ কেসটি সুরক্ষা দেওয়ার কারণেই ফোনটি সচল রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

৫৬ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরার কবলে পড়েছে তাইওয়ান। সান মুন লেক তাইওয়ানের অন্যতম প্রধান হ্রদ। এ লেকের পানি খরায় শুকিয়ে গেছে। চেন বলেন, যে শ্রমিক তাঁকে ফোনটি ফিরিয়ে দিয়েছেন, তিনি জানিয়েছেন, লেকের পানির স্তর ৫০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে নিচে নেমে গেছে। পানির স্তর নেমে যাওয়ায় এ লেকের কিছু অংশ একেবারে শুকিয়ে গেছে। কিছু অংশে সবুজ ঘাসও জন্মেছে।

default-image

খরার তীব্রতায় তাইওয়ানে পানির সংকট এত বেড়েছে যে তাইচুং, মিয়াওলি ও উত্তরের চ্যাংঘুয়া প্রদেশের শহরগুলোতে রেশন পদ্ধতিতে পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। এসব এলাকার বাসিন্দাদের চুলে শ্যাম্পু না করা এবং গাড়ি না ধোয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। অনেকেই বাথটাবে পানি জমিয়ে রেখে ব্যবহার করছেন।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন