default-image

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন পরের সপ্তাহে রাশিয়াজুড়ে কোভিড-১৯–এর বিরুদ্ধে একটি বড় আকারে স্বেচ্ছাসেবী টিকাদান কার্যক্রম শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রাশিয়া উদ্ভাবিত স্পুটনিক-৫ টিকাটি পাওয়ার তালিকার শুরুতেই থাকবেন শিক্ষক ও চিকিৎসকেরা।

গতকাল বুধবার রাশিয়ার মন্ত্রীদের সঙ্গে এক অনলাইন বৈঠকে অংশ নিয়ে পুতিন এ নির্দেশ দেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, পুতিন এমন সময় দেশে বড় আকারের টিকাদান কর্মসূচি চালাতে বললেন, যখন দেশটি করোনার সংক্রমণ শনাক্তের দিক থেকে বিশ্বে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে।

দেশটিতে করোনাভাইরাসে দৈনিক মৃত্যুসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৮৯।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেছেন, রাশিয়া আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই ২০ লাখ ডোজ টিকা তৈরি করে ফেলবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

রাশিয়ার তৈরি স্পুটনিক-৫ টিকাটির ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা অসম্পূর্ণ থাকলেও দেশটির নিয়ন্ত্রকেরা এর অনুমোদন দিয়ে দিয়েছেন। এ টিকাটির দুটি ডোজ ইনজেকশন হিসেবে নিতে হয়। স্পুটনিক-৫ ছাড়াও আরও একটি টিকার জরুরি অনুমোদন দিয়েছে দেশটি। তৃতীয় আরেকটি টিকা নিয়েও রাশিয়া কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

গত সপ্তাহে রাশিয়া দাবি করে, তাদের স্পুটনিক-৫ টিকাটি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ৯২ শতাংশ পর্যন্ত সুরক্ষা দিতে পারে। তাদের অন্তর্বর্তীকালীন গবেষণার ফল অনুযায়ী এ তথ্য পাওয়া গেছে।

পুতিন উপপ্রধানমন্ত্রী তাতিয়ানা গোলিকোভাকে বলেন, ‘আসুন, এতে একমত হোন। আপনি আগামী সপ্তাহে আমাকে রিপোর্ট করবেন না। তবে আপনি বড় আকারের টিকাদান কর্মসূচি শুরু করবেন। ইতিমধ্যে কাজ শুরু করা যাক।’

পুতিন তাঁর দেশের উপপ্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে আরও বলেন, ‘আমি বুঝতে পারি যে আপনি খুব সাবধানী ভাষা ব্যবহার করছেন এবং এটি ঠিক যে আমরা সতর্ক রয়েছি। তবে আমি জানি, শিল্প এবং (স্বাস্থ্য) নেটওয়ার্ক সাধারণভাবে প্রস্তুত। আসুন প্রথম পদক্ষেপ নেওয়া যাক।’

রাশিয়া ইতিমধ্যে উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা এক লাখ মানুষকে টিকা দিয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাস্কো জাতিসংঘের কাছে স্পুটনিক-৫ টিকা নিয়ে পৃথক এক উপস্থাপনায় এ তথ্য জানান। তাঁর উপস্থাপনা অনুযায়ী, বিশ্বে বর্তমানে ৪৫ হাজারের বেশি মানুষের ওপর উপস্থাপনা টিকাটির পরীক্ষা চলছে।

রাশিয়ার গত ২৭ নভেম্বর করোনার সর্বোচ্চ সংক্রমণ শনাক্তের পর এখন তা ধীরে ধীরে কমছে।

গতকাল দেশটিতে ২৫ হাজার ৩৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। রাশিয়া অবশ্য করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় দেশজুড়ে লকডাউন দেওয়ার পরিবর্তে আঞ্চলিক বিধিনিষেধ জারি করেছে।

টিকা সরবরাহ নিয়ে ক্রেমলিন আশ্বস্ত করে বলেছে, রাশিয়ানরা প্রথম উপস্থাপনা টিকা নেবে। মস্কো অবশ্য অন্য দেশের সঙ্গেও টিকা সরবরাহ নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, রাশিয়ানদের অগ্রাধিকার সর্বাগ্রে। রাশিয়ায় টিকা উৎপাদনের সবকিছু উন্নয়ন করা হয়েছে। রাশিয়ার চাহিদা মেটানো যাবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন