খুব বেশি আশঙ্কা আছে, এ অনুমোদনের প্রক্রিয়া ও গণভোটের ফল নেতিবাচক হওয়ার পর আমাদের নতুন করে শান্তি আলোচনা শুরু করতে হবে। আমরা এমন ইঁদুর-বিড়াল খেলা খেলতে পারব না।’

এদিকে বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, লাভরভ অভিযোগ করেছেন, মস্কো ও কিয়েভের মধ্যকার শান্তি আলোচনা ভেস্তে দেওয়ার চেষ্টা করছে পশ্চিমা বিশ্ব। ইউক্রেনের বুচা শহরে বেসামরিক নাগরিক হত্যার ঘটনা সামনে এনে উত্তেজনা ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে তারা।

সম্প্রতি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে বুচা শহর থেকে রুশ সেনারা চলে যাওয়ার পর স্থানীয় মেয়র জানান, শহরের বিভিন্ন সড়কে লাশ পড়ে রয়েছে। লাশগুলোকে গণকবর দেওয়া হচ্ছে। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩২০ জনই বেসামরিক নাগরিক বলে উল্লেখ করেন তিনি। এ ঘটনায় রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ খুঁজতে আন্তর্জাতিক তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে কিয়েভ। এদিকে ইউক্রেন ও পশ্চিমা দেশগুলোর কর্মকর্তারা দাবি করে আসছেন, রাশিয়া যে যুদ্ধাপরাধ করেছে, তার প্রমাণ রয়েছে।

তবে রুশ বার্তা সংস্থা আরআইএর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মস্কো এ হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবং একে ভয়ংকর মিথ্যা বলে উল্লেখ করেছে তারা।
বুচা শহরে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়েছে কি না, তা নিশ্চিত হতে ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত তদন্ত শুরু করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহের জন্য ইউক্রেনও একটি বিশেষ দল তৈরি করেছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন