গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালানোর নির্দেশ দেন পুতিন। এরপর দীর্ঘ দুই মাস পেরিয়ে গেছে। রাশিয়ার বাহিনীর হামলায় ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ শহর ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। দেশটির বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানোরও অভিযোগ উঠেছে। তারপরও এটিকে যুদ্ধ বলতে রাজি নয় রাশিয়া।

আগামী ৯ মে রাশিয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সোভিয়েত ইউনিয়নের বিজয় দিবস। ১৯৪৫ সালের এই দিনে হিটলারের নাৎসি বাহিনীর পরাজয় ঘটে রাশিয়ায়। তারপর থেকেই রাশিয়া দিনটি স্মরণ করে আসছে। এমন প্রেক্ষাপটে ক্রেমলিন মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, দিবসটি উপলক্ষ্যে যুদ্ধ ঘোষণার যে গুজব শোনা যাচ্ছে সেটি আদৌ সত্য নয়।

গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেস বলেছিলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলারের নাৎসি বাহিনীর পরাজয়ের দিনে কুচকাওয়াজের আয়োজন করবে মস্কো। বিজয় দিবসকে স্মরণীয় করে রাখতে ওই দিনটিতেই ইউক্রেনে যুদ্ধের ঘোষণা দিতে পারেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন।

জানা গেছে, দিবস উপলক্ষে মস্কোতে বার্ষিক কুচকাওয়াজের পাশাপাশি, দক্ষিণ ইউক্রেনের মারিউপোল শহরেও কুচকাওয়াজের পরিকল্পনা করছে মস্কো। ইতিমধ্যে মারিউপোলের অধিকাংশ জায়গা রাশিয়ার বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। শুধু শহরের আজোভস্তল ইস্পাত কারখানায় ইউক্রেন বাহিনীর কিছু সদস্য অবস্থান করছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন