বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

লুহানস্কের গভর্নর সেরহি হাইদাই বলেন, শনিবার দুপুরে রুশ বাহিনী স্কুলটিতে বোমা হামলা চালিয়েছে। ওই স্কুল ভবনে প্রায় ৯০ জনকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছিল। বোমা হামলার পর স্কুল ভবনটিতে আগুন ধরে যায়।

মেসেজিং অ্যাপ টেলিগ্রামে হাইদাই লিখেছেন, ‘প্রায় চার ঘণ্টা পর আগুন নেভানো সম্ভব হয়েছে। এরপর ধ্বংসস্তূপ পরিষ্কারের সময় দুর্ভাগ্যজনকভাবে দুজনের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। ৩০ জনকে ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে সাতজন আহত। ভবনগুলোর ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে ৬০ জনের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।’

তাৎক্ষণিকভাবে খবরটির সত্যতা যাচাই করা যায়নি বলে উল্লেখ করেছে রয়টার্স।
১০ সপ্তাহ ধরে ইউক্রেনে রুশ হামলায় হাজারো মানুষের প্রাণহানি হয়েছে, ধ্বংস হয়ে গেছে বিভিন্ন শহর। ৫০ লাখের বেশি ইউক্রেনীয় নাগরিক অন্য দেশে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

এদিকে বন্দর শহর মারিউপোল রুশ বাহিনীর জন্য একটি কৌশলগত লক্ষ্যবস্তু। কার্যত এ শহরটি ধ্বংস হয়ে গেছে। সোভিয়েত যুগের আজভস্তাল ইস্পাত কারখানাটিই ইউক্রেনীয় বাহিনীর দখলে আছে। সেখানে আটকে পড়া সর্বশেষ ৩০০ বেসামরিক নাগরিককে শনিবার নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ওই কারখানায় অবস্থানরত ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা আত্মসমর্পণ না করার অঙ্গীকার করেছেন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন