বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মোরাউইকি আরও বলেছেন, পোল্যান্ড ব্ল্যাকমেলের কাছে নতি স্বীকার করবে না এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সীমানা রক্ষার জন্য সবকিছু করবে। পোল্যান্ড ও তার মিত্ররা সীমান্ত সংকটের জন্য বেলারুশকে দায়ী করছে। তারা বলছে, রাশিয়ার ইন্ধনে বেলারুশ মানুষকে পোল্যান্ডে প্রবেশের উসকানি দিচ্ছে। এসব অভিবাসীদের মধ্যে অধিকাংশই মধ্যপ্রাচ্যের নাগরিক। বেলারুশ অবশ্য এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলছে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন অভিবাসীদের আশ্রয় দিচ্ছে না।

গত শুক্রবার বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কো বলেছেন, তাঁর দেশের সেনারা ‘সম্ভবত’ অভিবাসীদের ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রবেশ করতে সহায়তা করেছে। তবে তিনি অভিবাসীদের আমন্ত্রণ জানিয়ে এখানে আনেননি। পোল্যান্ডের গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সীমান্তে সংকট শুরু হওয়ার পর থেকে অন্তত ১১ জন অভিবাসী মারা গেছেন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন