default-image

ইউরোপ ‘অগ্রহণযোগ্য ধীরগতিতে’ করোনার টিকাদান কর্মসূচি চালাচ্ছে বলে নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এ ছাড়া করোনার সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে বলেও সতর্ক করা হয়েছে। সম্প্রতি ফ্রান্স করোনার সংক্রমণের বিস্তার ঠেকাতে নতুন করে সেখানে বিধিনিষেধ জারি করেছে। ইউরোপ করোনার তৃতীয় ঢেউ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপ অঞ্চলের পরিচালক হ্যান্স ক্লুগ বলেছেন, ‘মহামারি থেকে বের হতে টিকা সেরা পথ। তবে টিকা দেওয়ার কার্যক্রম অগ্রহণযোগ্য ধীরগতির।

আমাদের অবশ্যই উৎপাদন বাড়িয়ে টিকাদান কর্মসূচির গতি বাড়াতে হবে, টিকাদানের প্রশাসনিক বাধা দূর করতে হবে এবং গচ্ছিত প্রতিটি ভায়াল ব্যবহার করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের পক্ষ থেকে টিকাদানের ধীরগতির জন্য সরবরাহ সমস্যাকে দায়ী করা হয়। তবে ইউরোপের কিছু দেশে সংক্রমণ বাড়লেও টিকা দেওয়া নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব রয়েছে।

অন্যদিকে, টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ফাইজার ও বায়োএনটেক আশার আলো দেখাচ্ছে। তারা বলছে, করোনাভাইরাসের দক্ষিণ আফ্রিকান ধরনটির বিরুদ্ধে তাদের টিকা অত্যন্ত কার্যকর। তরুণদের মধ্যে টিকার উৎসাহব্যঞ্জক ফলাফলের পর ইসরায়েলের পক্ষ থেকে শিশুদের টিকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

বিভিন্ন দেশের সরকার আশা করছে, টিকা মানুষকে আবার স্বাভাবিক পথে ফিরিয়ে নিতে পারবে। এক বছরের বেশি সময় ধরে চলতে থাকা মহামারিতে ইতিমধ্যে বিশ্বের ২৮ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এএফপি, কোপেনহেগেন

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন