জেলেনস্কির ভাষ্য, ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়া প্রায় দুই লাখ সেনার সমাবেশ ঘটিয়েছে। একই সঙ্গে জড়ো করা হয়েছে হাজারো যুদ্ধযান।

যুক্তরাষ্ট্রের এক জ্যেষ্ঠ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা বলেছেন, রাশিয়া এখন ইউক্রেনে বড় আকারের আগ্রাসন চালানোর জন্য সামরিকভাবে পুরোপুরি প্রস্তুত।

রুশ আক্রমণের আশঙ্কায় ইউক্রেন গতকাল রাতে ৩০ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

সম্ভাব্য রুশ আক্রমণ প্রতিরোধে ইউক্রেন তাদের সংরক্ষিত সেনাদের নিয়মিত বাহিনীর সঙ্গে যুক্ত করেছে। ইউক্রেনের ১০ লাখের বেশি সেনা প্রতিরোধযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত।

যেকোনো মুহূর্তে যুদ্ধের জন্য নাগরিকদের প্রস্তুত থাকতে বলেছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী। এর অংশ হিসেবে ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী নাগরিকদের নিয়মিত সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পূর্ব ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার লাখো সেনা মোতায়েন নিয়ে উত্তেজনা চলছিল বেশ কিছু দিন ধরে।

গত সোমবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রুশপন্থী বিদ্রোহীনিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনের দুই অঞ্চল দোনেৎস্ক ও লুহানস্ককে স্বাধীন রাষ্ট্র ঘোষণা করেন। সেখানে ‘শান্তি রক্ষায়’ সেনা পাঠানোর নির্দেশ দেন তিনি। এরপর উত্তেজনা নতুন মাত্রা পায়।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন