বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে আলোচনায় অংশ নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রও। তবে শর্ত দিয়েছে দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মুখে শুরু করা ইরানের পারমাণবিক কার্যক্রমে লাগাম দিলেই এ নিয়ে সামনে আগানো হবে বলে জানিয়ে রেখেছে মার্কিন প্রশাসন। তারা বলছে, ইরান আন্তরিক থাকলেই চুক্তি সম্ভব। ২০১৮ সালে ইরানের পারমাণবিক চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেন দেশটির তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

চুক্তি নিয়ে আলোচনার বিষয়টি ইরানের পক্ষে নিশ্চিত করেছেন দেশটির পররাষ্ট্র উপমন্ত্রী আলী বাঘেরি। তিনি আসন্ন পরমাণু আলোচনায় ইরানের নেতৃত্ব দেবেন। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, এনরিক মোরার সঙ্গে এক ফোনালাপে আলোচনার দিনক্ষণ ঠিক করা হয়েছে।

টুইটে আলী বাঘেরি বলেন, ‘ইরানের ওপর থেকে অনৈতিক ও অমানবিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের লক্ষ্যে ২৯‍ নভেম্বর ভিয়েনায় আলোচনায় বসতে আমরা একমত হয়েছি।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চলতি মাসের শেষের দিকে এ আলোচনায় ব্রিটেন, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়াও অংশ নেবে। জেসিপিওএতে যুক্তরাষ্ট্রের ফিরে আসার সম্ভাব্যতা নিয়ে আলোচনা করা হবে। পাশাপাশি সব পক্ষের সম্মতিতে পারমাণবিক চুক্তির বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে কথা বলা হবে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন