করোনাবিধি ভঙ্গ নিয়ে তদন্তে হস্তক্ষেপ করেননি বরিস জনসন: শিক্ষামন্ত্রী জাহাবি

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন
ফাইল ছবি: এএফপি

নিজের বিরুদ্ধে করোনাবিধি ভঙ্গের বিষয়ে করা তদন্তে হস্তক্ষেপ করেননি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। আজ রোববার এমনটা বলেছেন দেশটির শিক্ষামন্ত্রী নাজিম জাহাবি। খবর রয়টার্সের

করোনাকালে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে নিজ সরকারের জারি করা স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও বাসভবন ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে আসর বসানোর (পার্টির আয়োজন) অভিযোগ ওঠে বরিস জনসনের বিরুদ্ধে।

ওই ঘটনার জেরে বিরোধী দল ও নিজ দলের অনেকে তাঁকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছিলেন। এসব কারণে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওই তদন্ত চলছে। এ তদন্তের প্রধান ব্রিটিশ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা স্যু গ্রে। বিবিসি জানিয়েছে, কয়েক দিনের মধ্যে তিনি এ তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ব্রিটিশ শিক্ষামন্ত্রী নাজিম জাহাবি
ছবি: রয়টার্স

সম্প্রতি স্যু গ্রে ও বরিস জনসন এক বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। এতে বিরোধী দল লেবার পার্টির পক্ষ থেকে এ বিষয়ে বরিসের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। তাদের অভিযোগ, বরিস এই তদন্তে হস্তক্ষেপ করছেন। এ ধরনের ‘গোপন বৈঠক’ তদন্ত প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

এ বিষয়ে স্কাই নিউজকে শিক্ষামন্ত্রী নাজিম জাহাবি বলেন, প্রধানমন্ত্রী কখনোই এই তদন্তে হস্তক্ষেপ করেননি। তবে গ্রের সঙ্গে কে ওই বৈঠক আহ্বান করেছিলেন সে বিষয়ে কিছু বলেননি নাজিম।

স্যু গ্রের পাশাপাশি লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশও করোনাবিধি ভেঙে ডাউনিং স্ট্রিট ও হোয়াইট হলে ১২টি জনসমাগমের (পার্টির আয়েজন) অভিযোগ নিয়ে তদন্ত করছে।
মেট্রোপলিটন পুলিশ তাদের তদন্ত শেষের ঘোষণা দেওয়ার পরে গ্রে তাঁর সম্পূর্ণ প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন। ইতিমধ্যে পুলিশ ৮৩ জনকে ১২৬টি জরিমানা করেছে। প্রধানমন্ত্রীসহ প্রায় ৩০ ব্যক্তিকে ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে যে তাঁদের নাম সম্ভবত গ্রের প্রতিবেদনেও আসতে পারে। এসব ব্যক্তি তাঁদের আপত্তি জানাতে আজ রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত সময় পাবেন।

আরও পড়ুন