ইউরোপিয়ান সেন্টার ফর ডিজিজ প্রিভেনশন অ্যান্ড কন্ট্রোল (ইসিডিসি) গত সপ্তাহে সতর্ক করে বলেছিল, ইউরোপে অমিক্রনের বিএ.৪ ও বিএ.৫ উপধরন ব্যাপকভাবে ছড়াচ্ছে। এই প্রবণতা ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, এই উপধরনগুলো ইউরোপে আধিপত্যশীল হয়ে উঠবে। এর ফলে ইউরোপে করোনার সংক্রমণ হার বাড়তে পারে।

ইউরোপের বেশকিছু দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। তার মধ্যে রয়েছে পর্তুগাল, জার্মানি, ফ্রান্স, গ্রিস, অস্ট্রিয়া, ইতালি, সুইজারল্যান্ড, স্পেন।

ফ্রান্সের রেমন্ড-পয়েনকার হাসপাতালের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ বেঞ্জামিন দাভিও বলেন, মহামারি আবার ত্বরান্বিত হচ্ছে। এই মৌসুমে এমন প্রবণতা একেবারেই অপ্রত্যাশিত।

অমিক্রনের বিএ.৪ ও বিএ.৫ উপধরন দুটি ১০ থেকে ১৫ শতাংশ বেশি সংক্রামক বলে জানান বেঞ্জামিন দাভিও।

নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, করোনার আগের ধরনগুলোর তুলনায় অমিক্রনের বিএ.৪ ও বিএ.৫ উপধরনের অধিক সংক্রমণ সক্ষমতা রয়েছে।

অমিক্রনের বিএ.৪ ও বিএ.৫ উপধরন দুটির রোগ প্রতিরোধব্যবস্থাকে ফাঁকি দেওয়ার মতো সক্ষমতা রয়েছে বলেও প্রতীয়মান হয়।

অন্যভাবে বললে, কেউ আগে করোনায় সংক্রমিত হলে কিংবা টিকা নিলেও তা বিশেষ করে এই উপধরনগুলোর বিরুদ্ধে শক্তিশালী সুরক্ষা দেয় না। এ কারণেই এই উপধরনগুলো প্রভাবশালী হয়ে উঠছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন