default-image

রাশিয়ায় এক দিনের হিসাবে করোনা সংক্রমণের রেকর্ড হয়েছে শনিবার। এদিন দেশটিতে ১২ হাজার ৮৪৬ জনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়। এর আগে গত শুক্রবার এক দিনে সর্বোচ্চ ১২ হাজার ১২৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। আল–জাজিরার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাশিয়ায় মারা গেছেন ১৯৭ জন। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় মারা গেলেন ২২ হাজার ৪৫৪ জন।

রাশিয়ায় করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৮৫ হাজার ৮৪ জনে। প্রায় সাড়ে ১৪ কোটি মানুষের দেশ রাশিয়া এখন করোনা সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বে চতুর্থ স্থানে। এ তালিকার শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র। এরপর যথাক্রমে ভারত ও ব্রাজিল।

বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির শুরুতে লকডাউনের মতো কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে রাশিয়া। তুলনামূলকভাবে অপ্রয়োজনীয় ব্যবসা–বাণিজ্য বন্ধ রাখা হয়। তবে গত জুনে সামরিক কুচকাওয়াজ ও গণভোটের জন্য বেশির ভাগ বিধিনিষেধই তুলে নেওয়া হয়।

মস্কোর মেয়র সের্গেই সেবিআনিন বয়স্ক ও শারীরিকভাবে দুর্বল ব্যক্তিদের ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়া অন্তত এক-তৃতীয়াংশ কর্মীকে বাসায় রেখে কাজ করার ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে নিয়োগদাতাদের। এ ছাড়া গণপরিবহন ও দোকানে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

মস্কো টাইমসের খবর অনুযায়ী, যাঁরা চিকিৎসা ও প্রতিরক্ষাসংক্রান্ত শিল্পের সঙ্গে যুক্ত, তাঁরা নতুন নীতিমালার বাইরে থাকবেন।

গত আগস্টে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়া প্রথম করোনার টিকা ‘স্পুটনিক ফাইভ’ নিবন্ধনের ঘোষণা দেয়। তখন বলা হয়, দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রীসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে এ টিকা নিয়েছেন। চলতি সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানান, তাঁর ঘনিষ্ঠ প্রায় ৫০ জন ব্যক্তির শরীরে এ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে তাঁর দপ্তরের কর্মী ও পরিবারের সদস্যরাও রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন