default-image

রাশিয়ায় কারাগারে বন্দী পুতিন সরকারের সমালোচক অ্যালেক্সি নাভালনির স্বাস্থ্যের অবস্থার অবনতি ঘটছে। তাঁর আইনজীবী জানিয়েছেন, হাত-পায়ে সাড়া হারাতে বসেছেন নাভালনি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দণ্ডিত হয়ে রাশিয়ার বিরোধী রাজনীতিক নাভালনি এখন কারাগারে। তাঁর আইনজীবী ভাদিম কবজেভ বলেন, মেরুদণ্ডের সমস্যায় নাভালনির শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। পিঠ ও পায়ে ব্যথার যথাযথ চিকিৎসার দাবিতে গত সপ্তাহে কারাগারে অনশন শুরু করেন নাভালনি।

গতকাল বুধবার কারাগারে নাভালনিকে দেখতে যান আইনজীবী কবজেভ। এরপর এক টুইটবার্তায় তিনি লেখেন, ‘নাভালনি নিজে নিজে হাঁটতে পারছেন। তবে হাঁটতে গিয়ে ব্যথা অনুভূত হচ্ছে তাঁর। এটা খুব উদ্বেগজনক যে তাঁর অসুস্থতা বেড়ে গেছে এবং তাঁর পা, হাতের তালু ও কবজিতে সাড়া কমে যাচ্ছে।’

এ সপ্তাহের শুরুতে শ্বাসনালিতে একাধিক উপসর্গ দেখা দিলে ৪৪ বছর বয়সী নাভালনিকে কারাগারের চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রে স্থানান্তরিত করা হয়। এ অবস্থায় হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, নাভালনির স্বাস্থ্যের এমন অবনতি হওয়ার খবর অস্বস্তিকর।

বিজ্ঞাপন

জার্মানি থেকে গত জানুয়ারিতে দেশে ফেরার পরপরই গ্রেপ্তার হন নাভালনি। আগের এক মামলায় দণ্ড মওকুফের শর্ত ভঙ্গ করার অভিযোগে তাঁকে প্রথমে গ্রেপ্তার ও পরে ফেব্রুয়ারির শুরুতে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এর সঙ্গে আছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের এক অভিজ্ঞ যোদ্ধাকে অসম্মানসূচক মন্তব্য করার অভিযোগ। তাতে তাঁকে জরিমানাও করা হয়েছে। সব মিলিয়ে আগামী কয়েক মাস কারাগারে অন্তরীণ অবস্থাতেই থাকতে হবে নাভালনিকে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কঠোর সমালোচক নাভালনির ওপর বিষ প্রয়োগ করা হয়েছিল গত বছরের ২০ আগস্ট। এর ফলে সাইবেরিয়া থেকে আকাশপথে মস্কো যাওয়ার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন নাভালনি। তাঁকে মস্কো শহরের একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে জার্মানিতে নেওয়া হয় চিকিৎসার জন্য।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন