default-image

ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে শিল্পকলা, ব্লাসফেমি আইন ও বাকস্বাধীনতা বিষয়ে আলোচনা সভায় বন্দুকধারীদের গুলিতে একজন নিহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার মধ্য কোপেনহেগেনের একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের ক্যাফেতে এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্যও আহত হন। খবর রয়টার্সের।
এক বেসামরিক নাগরিক নিহতের খবর নিশ্চিত করে ডেনমার্কের পুলিশ জানায়, হামলা চালানোর পর দুজন সন্দেহভাজন ব্যক্তি পালিয়ে গেছেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কনশিল্পী লার্স ভিল্কস। ২০০৭ সালে ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কনের দায়ে তাঁকে হত্যার হুমকি দেয় উগ্রবাদীরা।
বার্তা সংস্থা রিতজাউ জানায়, সভায় উপস্থিত ফরাসি রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিস জিমেরে ও শিল্পী লার্স ভিল্কস দুজনই অক্ষত আছেন। তবে পুলিশের তিনজন সদস্য আহত হয়েছেন।
পুলিশ কমান্ডার হেনরিক ব্লান্দেবার্গ স্থানীয় টেলিভিশনকে বলেন, হামলাকারী ছিলেন দুজন। নিহত ব্যক্তির বয়স ৪০। তিনি ওই আলোচনা অনুষ্ঠানে এসেছিলেন। পুলিশ ওই এলাকা ঘিরে রেখেছে।
সুইডেনের দক্ষিণাঞ্চলের কর্তৃপক্ষ বলেছে, তারা ডেনমার্কের পুলিশকে সাহায্য করছে।
মাসাধিককাল আগে ফ্রান্সে তিন দিনের সহিংসতায় ১৭ ব্যক্তি নিহত হন। রম্য সাপ্তাহিক শার্লি এবদোর কার্যালয়ে জঙ্গি হামলার মধ্য দিয়ে সেই সহিংসতা শুরু হয়।

২০০৫ সালে ডেনমার্কের জিলান্দস-পোস্তেন পত্রিকা মহানবী (সা.)-কে নিয়ে বেশ কয়েকজন শিল্পীর আঁকা ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ করে। এর প্রতিবাদে মুসলিম বিশ্বে ক্ষোভ ও সংঘাত ছড়িয়ে পড়ে। এতে অন্তত ৫০ ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন
ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন