default-image

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ সহজ করতে প্রথমবারের মতো ‘টিকার সনদ’ দেওয়া শুরু করেছে আইসল্যান্ড। যেসব ব্যক্তি টিকা গ্রহণ করেছেন, তাঁদেরই এই ডিজিটাল সনদ দেওয়া হচ্ছে। গতকাল মঙ্গলবার দেশটির কর্তৃপক্ষ এই তথ্য জানিয়েছে। ইউরোপের অন্য দেশগুলো যখন এ ধরনের সনদ দেওয়া হবে কি না তা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগছে, তখন দেশটি এই পদক্ষেপ নিল।

আইসল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, এখন পর্যন্ত দেশটির ৪ হাজার ৮০০ জন করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন। তাঁরা সবাই ডিজিটাল সনদ পাবেন। এ রকম সনদ বিতরণের কাজ করতে একটি ওয়েবসাইটও খুলেছে মন্ত্রণালয়টি। অন্য দেশগুলোতে ভ্রমণের সময় এই সনদ দেখিয়ে সহজেই যাতে ভ্রমণ করতে পারেন, সে জন্যই এই পদক্ষেপ নেওয়া।

যদিও এ ধরনের সনদ আন্তর্জাতিকভাবে এখনো স্বীকৃতি পায়নি। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যভুক্ত না হলেও আইসল্যান্ড ইউরোপীয় ইউনিয়নের শেনজেন অঞ্চলের একটি অংশ। ওই অঞ্চলের দেশগুলোকে মুক্ত ভ্রমণ সুবিধা দিয়ে থাকে দেশটি। এখন করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ইউরোপের অধিকাংশ দেশগুলোর নাগরিকদের আইসল্যান্ডে প্রবেশের জন্য একই ধরনের সনদ দেখানোর বাধ্যবাধকতার আদেশ জারির চেষ্টা করছে দেশটি।

বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে দেশটিতে ৬ হাজারের মতো করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। ৩ লাখ ৬৫ হাজার জনসংখ্যার দেশটিতে সম্প্রতি নতুন করে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ ধরনের সনদ চালুর জন্য সদস্যদেশগুলোর সম্মতি আদায়ের চেষ্টা করছে। জোটের সদস্যদেশ গ্রিস এর পক্ষে মত দিয়েছে। দেশটির দাবি, এটা করা গেলে নাজুক পর্যটন খাতে প্রাণ ফিরে আসবে।

তবে জোটের দুই প্রভাবশালী দেশ ফ্রান্স ও জার্মানি বলছে, এত আগেভাগে এ ধরনের সনদ দেওয়া ঠিক হবে না। কারণ, সবেমাত্র কিছু মানুষ করোনার টিকা পেয়েছেন। আর টিকা নেওয়া মানুষ থেকে ভাইরাস ছড়ায় কি না, সেটাও নিশ্চিত নয়।

এদিকে টিকা সনদ দিলেও টিকা নেওয়া ব্যক্তিরা করোনাভাইরাসে আর আক্রান্ত হবেন না, এমন নিশ্চয়তা দিতে পারেনি আইসল্যান্ডের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষও। এ ছাড়া টিকা নেওয়া ব্যক্তিরা অন্য ব্যক্তির মাঝে ভাইরাস ছড়াই কি না, সেটাও নিশ্চিত নয় তারা।

ইউরোপীয় কমিশন মঙ্গলবার বলেছে, ১১ সদস্যদেশ এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করেছে যে তারা টিকা সনদ চালু করতে যাচ্ছে এবং আরও সাত দেশ এই পদক্ষেপ নিতে আগ্রহী।

তবে চলতি মাসের মাঝামাঝিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরুরি কমিটি জানায়, তারা এখনই এ ধরনের সনদের বিরোধী।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন