ইউক্রেন যুদ্ধ যে দীর্ঘ সময় ধরে চলতে পারে, তা মনে করছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও। গত শুক্রবার কিয়েভ সফর করেছেন তিনি। এমন পরিস্থিতিতে ন্যাটোর প্রধানের মতো তাঁর সুরও একই—বেশি বেশি অস্ত্রসহায়তা ইউক্রেনের যুদ্ধে জয়ের সম্ভাবনা বাড়বে।

অস্ত্রসহায়তা বাড়াতে কয়েক দিন ধরেই সরব ইউক্রেনের কর্মকর্তারা। অস্ত্র ও গোলাবারুদের সরবরাহ বাড়াতে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে গত বুধবার দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেকসি রেজনিকভ প্রায় ৫০টি দেশের নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন।

ইউক্রেন যুদ্ধের শুরু থেকে দেশটিকে অস্ত্র দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র ও সমমনা দেশগুলো। তবে ভারী অস্ত্রসহায়তা চেয়ে কিয়েভ বলছে, রাশিয়াকে সামাল দিতে যে অস্ত্রের প্রয়োজন, তার আংশিক পশ্চিমা মিত্রদের কাছ থেকে পেয়েছে তারা।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন