বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রিসের দাবানল ভয়ংকর আকার ধারণ করেছে। দেশটির এভিয়া দ্বীপের পাইনগাছের জঙ্গলের একটা বড় অংশে আগুন জ্বলছে। অনেক বাসিন্দা ও পর্যটককে দ্বীপটি থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

পর্যটনের জন্য জনপ্রিয় এই দ্বীপে গতকালও আগুন নেভাতে অগ্নিনির্বাপণকর্মী ও স্থানীয় লোকজনকে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

এভিয়ার উত্তর অংশের দাবানলের আগুন সৈকতের গ্রামগুলোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানান গ্রিসের নাগরিক সুরক্ষাবিষয়ক উপমন্ত্রী নিকোস হার্দালিয়াস। তিনি বলেন, এভিয়ায় বড় ধরনের আগুন জ্বলছে দুই দিকে। একটি উত্তরে, অন্যটি দক্ষিণে। আগুন নেভাতে অগ্নিনির্বাপণকর্মীদের পাশাপাশি ১৭টি উড়োজাহাজ ও হেলিকপ্টার কাজ করছে।

দাবানলের ভয়াবহতার কথা জানিয়ে নিকোস বলেন, ‘আমাদের সামনে আরেকটি কঠিন সন্ধ্যা, আরেকটি কঠিন রাত রয়েছে।’

শুধু গ্রিসই নয়, দাবানলে পুড়ছে প্রতিবেশী তুরস্কও। গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ দাবদাহ দেখছে এই অঞ্চলের মানুষ। ভয়াবহ এই দাবানলের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবকে দুষছেন বিশেষজ্ঞরা।

গ্রিসে দাবানলে এখন পর্যন্ত দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে একজন অগ্নিনির্বাপণকর্মী। অন্যদিকে তুরস্কে মারা গেছেন আটজন।

দাবানলের কারণে তুরস্কের দক্ষিণ উপকূল থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে হাজারো মানুষকে। অনেককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তুরস্কে সপ্তাহান্তে বৃষ্টিতে দাবানল সামান্য কমে আসে। তবে গ্রিসে তাপমাত্রা বৃদ্ধি অব্যাহত আছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন