বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জার্মানির দুর্যোগ প্রতিরোধ ও সমন্বয়সংক্রান্ত মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নর্থ রাইন ভেস্টফ্যালিয়া রাজ্যের ২৩টি জেলা বন্যায় দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রাইনল্যান্ড-ফ্যালৎস রাজ্যের শুল্ড ও অহরওয়েলার জেলাটি বিপর্যয়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখানকার ৭০০ বাসিন্দা এখন অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্রে রয়েছে। এই এলাকার আইফেল ও ট্রিয়ার-সারবর্গ জেলায়ও যথেষ্ট ক্ষতি হয়েছে। গতকাল সকালে হেইনসবার্গ জেলার রুর বাঁধ ভেঙে গেলে ওই এলাকার একটি গ্রাম থেকে ৭০০ বাসিন্দাকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্র সফররত জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল জার্মানিতে ফিরেই উপদ্রুত অঞ্চলে সাহায্য ও সহযোগিতার জন্য দুই রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন বলে চ্যান্সেলরের মুখপাত্র স্টেফান সিবার্ট জানিয়েছেন। গতকাল জার্মানির রাষ্ট্রপতি ফ্রাঙ্ক ভাল্টার স্টাইনমায়ার উপদ্রুত এলাকাগুলো দেখতে যাওয়ার কথা ছিল।

বন্যাজনিত কারণে শুক্রবার কোলোন শহরের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইরফট্যাডট-ব্লেসেমে বিশাল এলাকাজুড়ে বড় ধরনের ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। ভূমিধসে সেখানে বড় এলাকাজুড়ে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ভূমিধসে কয়েকটি বাড়ি ও একটি ঐতিহাসিক দুর্গের কিছু অংশ ধসে পড়েছে। উদ্ধারকর্মীরা নৌকায় করে ওই এলাকা থেকে ৫০ জনকে উদ্ধার করছেন।

জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলে উপদ্রুত এলাকাগুলোতে গত শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় এক লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে। বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বলেছে, বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করতে আরও সময় লাগবে। এ ছাড়া কিছু কিছু এলাকায় পানি ও গ্যাস সরবরাহে বিপত্তি দেখা দিয়েছে।

জার্মানির বিভিন্ন রাজ্য থেকে উপদ্রুত দুই রাজ্যে সহযোগিতার জন্য উদ্ধারকর্মীরা পৌঁছেছেন। শুধু নর্থ রাইন ভেস্টফ্যালিয়া রাজ্যের উপদ্রুত অঞ্চলে ১৯ হাজার উদ্ধারকর্মী কাজ করছেন। জার্মানি সেনাবাহিনীর এক হাজার সেনা এই দুর্যোগ মোকাবিলায় সহায়তা করছেন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন