default-image

করোনাভাইরাসের টিকা রপ্তানি নিয়ে যুক্তরাজ্য প্রতারণা করছে বলে অভিযোগ তুলেছে ফ্রান্স। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে টিকা সরবরাহ নিয়ে চলমান অস্থিরতার মধ্যে এই অভিযোগ তুলল দেশটি। খবর বিবিসির।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ ইয়ুভস লে দ্রিয়ান বলেছেন, ‘আমাদের সহযোগিতামূলক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। কিন্তু এভাবে কাজ চলতে পারে না।’

টিকা রপ্তানি কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ফ্রান্স। ইউরোপীয় ইউনিয়ন চুক্তি অনুযায়ী টিকা সরবরাহ না করার অভিযোগ তুলেছে অ্যাস্ট্রাজেনেকার বিরুদ্ধে। তবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

বিজ্ঞাপন

ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী টিকা নিয়ে যুক্তরাজ্য কীভাবে প্রতারণা করছে, তা ব্যাখ্যা করেননি। তিনি বলছেন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ইউরোপীয় ইউনিয়নকে টিকা রপ্তানিতে নিয়ন্ত্রণ আরোপ নিয়ে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেছেন, টিকা রপ্তানিতে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করলে সদস্যদেশগুলোতে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে।

ইউরোপে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। ইতালিতে ১ লাখ ৬ হাজারের বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। ফ্রান্সে ৯৩ হাজার, জার্মানিতে ৭৫ হাজার ও স্পেনে ৭৩ হাজার জন করোনায় সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন। বেলজিয়াম ও নেদারল্যান্ডসে লকডাউন আরোপ করা হয়েছে। পোল্যান্ডে নার্সারি, প্রাক্‌–প্রাথমিক স্কুলগুলো দুই সপ্তাহ পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে

এ মাসের শেষে ৩ কোটি ডোজ টিকা পাবে বলে আশা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তবে এটি তাদের প্রত্যাশার চেয়ে এক–তৃতীয়াংশ কম।

গত বৃহস্পতিবার ইইউর ২৭ দেশের নেতাদের সঙ্গে ভিডিও সম্মেলন শেষে জোটপ্রধান উরসুল ভন ডার লিয়েন যুক্তরাজ্য ও অন্যান্য দেশে টিকা রপ্তানিতে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির হুঁশিয়ারি দেন। তিনি বলেন, অন্য জায়গায় টিকা সরবরাহের আগে অ্যাস্ট্রাজেনেকাকে ইইউতে প্রতিশ্রুতি অনুসারে টিকা সরবরাহ করতে হবে।

গতকাল শুক্রবার ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী টিকা কেনা নিয়ে সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য অত্যন্ত গর্বের সঙ্গে বলছে যে তাদের টিকাদান কর্মসূচি খুব ভালোভাবে চলছে। দেশটি টিকার প্রথম ডোজ ভালোভাবে দিয়েছে। দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার ব্যাপারেও কোনো সমস্যা নেই। তিনি বলেন, কেবল একজন এভাবে খেলা চালিয়ে যেতে পারে না।

বিজ্ঞাপন
ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন