default-image

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ কোটি ৬২ লাখের বেশি মানুষ। আর মারা গেছেন প্রায় ৮ লাখ ৭০ হাজার। এই মহামারি মানুষকে কতটা ভয় পাইয়ে দিয়েছে, তার একটি চিত্র উঠে এসেছে সুইডেনের একটি পরিবার থেকে। দেশটিতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজারের বেশি মানুষ, আর মারা গেছেন প্রায় ৬ হাজার। সেখানে করোনার সংক্রমণ নিয়ে একটি পরিবার এতটাই ভীত ছিল যে তারা তাদের তিন শিশুকে পাঁচ মাস ঘর থেকে বের হতে দেয়নি।

এখানেই শেষ নয়। এএফপির খবরে জানা যায়, শিশুদের প্রত্যেককে আলাদা রাখা হয়েছিল। যাতে কেউ বের না হতে পারে, সে জন্য দরজা স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এই ঘরবন্দী অবস্থায় বাকি সব ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল। তাদের নিয়মিত খাবার দেওয়া হয়েছে। অভিভাবকের চিন্তা ছিল, শিশুরা বাইরে গেলে করোনায় আক্রান্ত হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

ওই শিশুদের বয়স ১০ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। তবে এমন শিশুদের ক্ষেত্রে আলাদা ব্যবস্থা নিয়েছিল সুইডেন সরকার। ১৬–এর বেশি বয়সীদের ক্ষেত্রে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিশুদের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। ফলে এই তিন শিশুর অধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। সুইডেনের অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কোর্ট এই শিশুদের কেয়ার সেন্টারে আনার ব্যবস্থা করেছে। এ ছাড়া শিশুরা যা চায়, সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়ে থাকে সুইডেনের লোকাল সোশ্যাল সার্ভিস। কিন্তু শিশুদের মা-বাবা দাবি করছেন, ওই শিশুদের অমতে কিছুই করা হয়নি।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন