বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
  • হামলার পর ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়ার সমস্ত সম্পদ জব্দ করার ঘোষণা দিয়েছে। ইউরোপের আর্থিক বাজারের ব্যাংকগুলোতে রাশিয়ার প্রবেশাধিকার বন্ধ করে দিয়েছে।

  • হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, এ যুদ্ধ পুতিনের পূর্বপরিকল্পিত। ওয়াশিংটন ও তার মিত্ররা রাশিয়ার ওপর ‘চরম নিষেধাজ্ঞা’ আরোপ করবে।

  • ইউক্রেনে রাশিয়ার এ হামলাকে আগ্রাসন বলতে নারাজ চীন। দেশটি সব পক্ষকে শান্তি বজায় রাখতে আহ্বান জানিয়েছে।

  • ইউক্রেন সাধারণ বিমান পরিবহন বন্ধ ঘোষণা করেছে।

যে যা বললেন

সামরিক অভিযানের আগে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, ‘ক্রমাগত সহিংস আচরণ ও গণহত্যার শিকার মানুষদের সুরক্ষায় আমি একটি সামরিক অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর মাধ্যমে ইউক্রেনের সামরিকায়ন ও নাৎসিকরণ বন্ধের চেষ্টা করব।’ পুতিন আরও বলেন, অনেক সাধারণ নাগরিকের রক্ত ঝরানোর কাজ যাঁরা করেছেন, তাঁদের বিচারের আওতায় আনতে এ অভিযান।

অভিযান শুরুর পর ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্র কুলেবা টুইটারে বলেন, ‘পুতিন এইমাত্র ইউক্রেনে পুরো মাত্রার আগ্রাসন শুরু করেছে। ইউক্রেনের শান্ত শহরগুলো হামলার মুখে।’

এখন কী হবে

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জি-সেভেনের রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গে পরবর্তী করণীয় নিয়ে বসবেন।

  • আজই রাশিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য জরুরি বৈঠকে বসছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

  • ন্যাটোর রাষ্ট্রদূতেরা আজ এক জরুরি বৈঠকে বসবেন।

  • রাশিয়ার সামরিক অভিযানের বিষয়ে নিন্দা প্রস্তাব আনতে নিরাপত্তা পরিষদ আলোচনা করবে।

  • ইউরোপিয়ান সেন্ট্রাল ব্যাংকের নীতিনির্ধারকেরা এক জরুরি বৈঠকে বসছেন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন