বিশ্বের সবচেয়ে বড় একক যন্ত্র লার্জ হ্যাড্রন কোলাইডারের (এলএইচসি) সামর্থ্যের উন্নতি করা হয়েছে। ফলে সেখানে আরও বেশি পরিমাণ শক্তি নিয়ে কাজ করার সুযোগ তৈরি হয়েছে। এলএইচসির একজন জ্যেষ্ঠ গবেষক বলেছেন, চলতি বছরেই ‘বিশ্ব কাঁপিয়ে দেওয়ার মতো’ নতুন আবিষ্কার সম্ভব হতে পারে এর মাধ্যমে। খবর বিবিসির।
এলএইচসির সংশ্লিষ্ট গবেষক বলেন, এ বছর একটি নতুন কণা শনাক্ত করার সম্ভাবনা রয়েছে। এটি হবে হিগস বোসন কণার চেয়েও আকর্ষণীয়। এতে মহাবিশ্বের অনাবিষ্কৃত অনেক রহস্য সমাধানের পথে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।
নতুন কণাটি আবিষ্কৃত হলে বিজ্ঞানীরা ‘কৃষ্ণবস্তু’ (ডার্ক ম্যাটার) সম্পর্কে প্রত্যক্ষ ইঙ্গিত পাবেন। রহস্যময় ডার্ক ম্যাটারকে মহাবিশ্বের চালিকাশক্তি বলে মনে করা হয়।
ইউরোপীয় পরমাণু গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (সার্ন) তৈরি বিশাল ও আলোচিত যন্ত্র এলএইচসিতে বিপরীতমুখী কণাস্রোতের মধ্যে প্রচণ্ড শক্তিতে সংঘর্ষ ঘটানো হয়। এর অ্যাটলাস পরীক্ষণ প্রকল্পের মুখপাত্র অধ্যাপক বিট হেইনমান বলেন, এ বছরের গ্রীষ্মের শেষদিকেই নতুন কণাটির ব্যাপারে ইতিবাচক খবর পাওয়া যেতে পারে। তাঁরা এখন আরেকটি জগৎ খুঁজে পাওয়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন। সম্ভবত অতি-প্রতিসম (সুপারসিমেট্রিক) বস্তুর খোঁজ পেতে চলেছেন তাঁরা।

বিজ্ঞাপন
ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন