default-image

রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনির ব্যাংক হিসাব স্থগিত করা হয়েছে। এ ছাড়া তাঁর ফ্ল্যাট জব্দ করা হয়েছে। রাশিয়ার একটি আদালতের আদেশের পর এসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। নাভালনির মুখপাত্র এসব তথ্য জানিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

জার্মানির বার্লিনের হাসপাতাল থেকে গত বুধবার নাভালনি ছাড়া পাওয়ার পরদিনই রাশিয়ায় তাঁর ব্যাংক হিসাব স্থগিত ও ফ্ল্যাট জব্দ হওয়ার তথ্য পাওয়া গেল।

বিজ্ঞাপন

৪৪ বছর বয়সী নাভালনির ওপর নার্ভ এজেন্ট নোভিচক প্রয়োগ করা হয়েছিল। তিনি জার্মানির বার্লিনের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

নাভালনির মুখপাত্র কিরা ইয়ারমিশ বলেন, কোমা থেকে ফিরে আসা এক ব্যক্তির সম্পত্তি ও অ্যাপার্টমেন্ট জব্দ করেছে তারা (রুশ কর্তৃপক্ষ)।

কিরা ইয়ারমিশের ভাষ্য, গত ২৭ আগস্ট নাভালনির সম্পত্তি জব্দ করেন রুশ কর্মকর্তারা। জব্দের তালিকায় মস্কোর দক্ষিণ-পূর্ব এলাকায় থাকা নাভালনির তিন বেডরুমের অ্যাপার্টমেন্টও রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

টুইটারে পোস্ট করা ভিডিওতে কিরা ইয়ারমিশ বলেন, ‘তার মানে, জব্দ হওয়া ওই ফ্ল্যাট বিক্রি, দান বা বন্ধক রাখা যাবে না।’

নাভালনি জার্মানির হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, নাভালনি যেকোনো সময় মস্কোয় ফিরে আসতে পারেন। নাভালনির দ্রুত রোগমুক্তিও কামনা করেন তিনি।

গত ২০ আগস্ট সাইবেরিয়ার টমসক শহর থেকে উড়োজাহাজে করে মস্কোয় যাচ্ছিলেন নাভালনি। যাত্রাপথে উড়োজাহাজেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তাঁকে প্রথমে সাইবেরিয়ার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তিনি চিকিৎসার জন্য জার্মানি যান।

বিজ্ঞাপন

নাভালনি হাসপাতালে থাকাকালে জার্মানির চিকিৎসকেরা জানান, নাভালনিকে নার্ভ এজেন্ট প্রয়োগের স্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে।

পরে ফ্রান্স ও সুইডেনের পরীক্ষাগারে পরীক্ষায়ও নাভালনিকে বিষ প্রয়োগের প্রমাণ পাওয়া যায়।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের একজন কট্টর সমালোচক নাভালনি। তাঁর দলের অভিযোগ, পুতিনের নির্দেশেই নাভালনিকে বিষ প্রয়োগ করা হয়েছে।

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ক্রেমলিন। তারা বলেছে, নাভালনিকে বিষ প্রয়োগের কোনো প্রমাণ তারা পায়নি।

জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নাভালনির ওপর রাসায়নিক প্রয়োগের অভিযোগের নিরপেক্ষ ও স্বাধীন তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0