default-image

বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল ছেড়ে আর্মেনিয়া যাওয়ার আগে নিজেদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিচ্ছেন জাতিগত আর্মেনীয়রা। শান্তি চুক্তির অংশ হিসেবে রোববারের মধ্যে এই অঞ্চল ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে আর্মেনীয়দের। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদনে এই কথা জানানো হয়।

আজারবাইজানের কালবাজার জেলাটি দীর্ঘদিন ধরে আর্মেনীয়দের নিয়ন্ত্রণে ছিল। শান্তি চুক্তির পর এই সপ্তাহে সেখানকার বাসিন্দারা দলে দলে তাঁদের ঘরবাড়ি ছাড়তে শুরু করেন। শান্তি চুক্তি মোতাবেক রোববার থেকে এলাকাটির নিয়ন্ত্রণ পুনরায় আজারবাইজানের কাছে চলে যাওয়ার কথা রয়েছে। কালবাজারের এক বাসিন্দা আল–জাজিরাকে বলেন, আর্মেনিয়ার শিশুরা কান্নাকাটি করছে। তারা বাড়িতে ফিরতে চায়। এটি সত্যি কষ্টদায়ক।

বিজ্ঞাপন

গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে দুই দেশের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। রাশিয়ার মধ্যস্থতায় দুই দেশ যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়।

পার্শ্ববর্তী জেলা মারটাকের্টের সীমান্তবর্তী গ্রাম চারেকতারে শনিবার সকালে গ্রামটির প্রায় ছয়টি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। ওই গ্রামের এক বাসিন্দা আল–জাজিরাকে বলেন, ‘এটি আমার বাড়ি। আমি তুর্কিদের জন্য এটি ছেড়ে যেতে পারি না।’ উল্লেখ্য, আজেরিদের প্রায়ই তুর্কি বলে সম্বোধন করেন আর্মেনীয়রা।

ওই বাসিন্দা আরও বলেন, ‘সবাই তাদের বাড়ি পুড়িয়ে দেবে। আমাদের মধ্যরাত পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে।’ শুক্রবার ওই গ্রামের প্রায় ১০টি বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়। আল–জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, বাড়ি ছাড়ার সময় সেখানকার বাসিন্দারা বিদ্যুৎ–সংযোগও বিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0