default-image

সদ্য প্রয়াত প্রিন্স ফিলিপ প্রায় ১৫ বছর আগে একটি ল্যান্ড রোভার গাড়ির নকশা তৈরিতে সাহায্য করেছিলেন। সেই গাড়িতে করেই এবার শেষযাত্রায় যাচ্ছেন তিনি। আগামী শনিবার রাজকীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় ওই গাড়িতেই বহন করা হবে প্রিন্স ফিলিপের কফিন।

পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়েছে, বাকিংহাম প্যালেসের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়েছে। রাজকীয় কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, উইন্ডসর ক্যাসেলে প্রিন্স ফিলিপের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হবে। ধারণা করা হচ্ছে, ‘ডিফেন্ডার ১৩০ গান বাস’ নামের একটি ল্যান্ড রোভার গাড়িতে করে প্রিন্স ফিলিপের মরদেহ বহন করা হবে। ২০০৫ সালে ফিলিপের ব্যবহারের জন্য এই গাড়ি তালিকাভুক্ত হয়েছিল।

বাকিংহাম প্যালেসের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৭ এপ্রিল শনিবার ওই ল্যান্ড রোভার গাড়িতে করে প্রিন্স ফিলিপের কফিন সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলের ফটকে নেওয়া হবে। সেখানেই শুরু হবে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার অনুষ্ঠান। এক বিবৃতিতে প্রাসাদ কর্তৃপক্ষ বলেছে, গাড়িটির পাশ দিয়ে নিয়ম অনুযায়ী হাঁটবেন রাজপরিবারের সদস্যরা।

বিজ্ঞাপন

ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপ গত শুক্রবার উইন্ডসর ক্যাসেলে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। ব্রিটিশ ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি দিন ধরে রয়্যাল কনসোর্ট ছিলেন তিনি। রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে প্রিন্স ফিলিপের বিয়ে হয় ১৯৪৭ সালে। এর পাঁচ বছর পর ব্রিটিশ সিংহাসনে আরোহণ করেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ। গত নভেম্বরে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ও প্রিন্স ফিলিপ তাঁদের ৭৩তম বিবাহবার্ষিকী পালন করেন।

প্রিন্স ফিলিপ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ব্রিটিশ নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তা ছিলেন এবং নৌবাহিনীর আনুষ্ঠানিক প্রধানের পদ লর্ড হাই অ্যাডমিরাল হিসেবেও দায়িত্বপালন করেন তিনি। ৯৬ বছর বয়সে সরকারি দায়িত্ব থেকে অবসরে যান ফিলিপ।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন