তুরস্কে এক নারীর হাতে তাঁর স্বামী খুন হয়েছেন। ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে স্বামীকে হত্যা করেন ওই নারী।
বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, ওই নারীর দাবি, স্বামীর হাতে বেদম মারধরের শিকার হওয়ায় এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন তিনি।
গতকাল রোববার দৈনিক হুরিয়াত জানায়, জার্মানির পর্নো ছবি দেখে ওই নারীকে একই ধরনের যৌন-আচরণ করতে বলতেন তাঁর স্বামী। কিন্তু স্ত্রী তাতে অস্বীকৃতি জানান। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে স্ত্রীকে বেদম পিটুনি দিতেন স্বামী। এর জের ধরে স্ত্রীর হাতে খুন হন স্বামী।
৪৯ বছর বয়সী ওই নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে তিনি দাবি করেন, তাঁর ৬৭ বছর বয়সী স্বামী সুখী জীবনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। বিয়ের পর প্রথম কিছু দিন সব ঠিকঠাকভাবেই চলছিল। এরপর শুরু হয় সহিংসতা।
ওই নারীর অভিযোগ, তাঁর স্বামী রাতভর জার্মান পর্নো ছবি দেখতেন। ছবির আদলে তাঁকে অভিনয় করতে বলতেন। প্রত্যাখ্যান করায় তাঁকে বেদম মারপিট করতেন স্বামী। পুলিশের কাছে অভিযোগ দিলে নির্যাতন আরও বেড়ে যায়। একপর্যায়ে তিনি তাঁর স্বামীকে রান্নাঘরে ব্যবহৃত ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেন। পরে পুলিশের কাছে ধরা দেন।

বিজ্ঞাপন
ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন