ইউক্রেনের সামরিক উড়োজাহাজ ভূপাতিত করার যে দাবি মস্কো করেছে, তাতে হতাহত হওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেছে কি না, তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট নয়।

রুশ আগ্রাসনের প্রেক্ষাপটে ইউক্রেনকে বিপুল অস্ত্রসহায়তা দিয়ে আসছে পশ্চিমা দেশগুলো।

ইউক্রেনকে আরও অস্ত্র দেওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি বারবার আহ্বান জানাচ্ছে কিয়েভ। একই সঙ্গে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরও কঠোর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে ইউক্রেন।

জেনারেল ইগোর কোনাশেঙ্কোভ আরও দাবি করেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রাশিয়ার বিমান ইউনিটগুলো ইউক্রেনের কয়েক ডজন সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে।

কৃষ্ণসাগরে যুদ্ধজাহাজ মস্কোভাডুবির পর ইউক্রেনে হামলা জোরদার করেছে রাশিয়া।

ইগোর কোনাশেঙ্কোভ বলেছেন, রুশ বিমানবাহিনী উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে রাতারাতি ইউক্রেনের ১৬টি সামরিক স্থাপনা ধ্বংস করেছে।

এক সংবাদ সম্মেলনে ইগোর কোনাশেঙ্কোভ বলেন, হামলার শিকার ১৬টি সামরিক স্থাপনার মধ্যে ওডেসা অঞ্চলের পোভস্তানস্কো গ্রামে ইউক্রেনের সামরিক যানের ১১টি সংরক্ষণাগারও রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার কৃষ্ণসাগরে ডুবে যায় রাশিয়ার নৌবহরে থাকা যুদ্ধজাহাজ মস্কোভা। সোভিয়েত আমলে তৈরি এই যুদ্ধজাহাজ রুশ বাহিনীর শৌর্যের প্রতীক।

রাশিয়া বলেছে, জাহাজটিতে আগুন লাগে। পরে সেটি তীরের দিকে টেনে নেওয়ার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায়। তবে ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ বলছে, জাহাজটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছিল তারা।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন