পুতিনকে সত্য বলতে ভয় পাচ্ছেন উপদেষ্টারা: হোয়াইট হাউস

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন
ছবি: রয়টার্স

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ভুলপথে পরিচালিত করছেন তাঁর উপদেষ্টারা। ইউক্রেন যুদ্ধে কতটা বাজে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, পুতিনকে সেই সত্যটা বলতেও ভয় পাচ্ছেন তাঁরা। এসব কথা বলেছে হোয়াইট হাউস। খবর বিবিসির
যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা বলছেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার সেনারা মনোবল হারিয়ে ফেলেছেন। যুদ্ধের জন্য রুশ বাহিনীর কাছে পর্যাপ্ত সামরিক সরঞ্জামও নেই। রুশ সেনারা কমান্ডারদের আদেশ মানছেন না।

হোয়াইট হাউস দাবি করেছে, রাশিয়ার অর্থনীতিতে নিষেধাজ্ঞার প্রভাব কতটা ব্যাপক, পুতিনকে সে সম্পর্কেও কিছু বলা হচ্ছে না।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র কেট বেডিংফিল্ড বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তথ্য আছে, রাশিয়ার সামরিক বাহিনী দ্বারা ভুল পথে পরিচালিত হচ্ছেন পুতিন। এ জন্য পুতিনের সঙ্গে তাঁর সামরিক নেতৃত্বের এখন উত্তেজনা চলছে। পুতিনের কৌশলগত ভুলের কারণে শুরু এই যুদ্ধের ফলে রাশিয়া দুর্বল হয়েছে এবং বৈশ্বিক পর্যায়ে একঘরে হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি পুতিনকে নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দাদের এ মূল্যায়নকে অস্বস্তিকর বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, অস্বস্তির কারণ হলো, পুতিন সঠিক তথ্য সম্পর্কে জানেন না। সংঘাত নিরসনের লক্ষ্যে ইউক্রেন ও রাশিয়ার প্রতিনিধিদের মধ্যে শান্তি আলোচনা চলছে। পুতিন সত্যটা না জানায় প্রত্যাশিত ফল আসবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের মতো একই সুরে কথা বলেছেন যুক্তরাজ্যের সাইবার গোয়েন্দা সংস্থা জিসিএইচকিউ-এর প্রধান জেরেমি ফ্লেমিং। তিনি বলেন, যুদ্ধ পরিস্থিতি ভুলভাবে মূল্যায়ন করেছে রাশিয়া। এতে অনেক বিষয় নিয়েই রাশিয়ার নেতৃত্ব ও রুশ বাহিনীকে ইউক্রেনের যুদ্ধ নিয়ে নতুন করে ভাবতে বাধ্য হচ্ছে। জেরেমি ফ্লেমিং আরও বলেছেন, বিপর্যস্ত রাশিয়ার সেনারা নিজেদের সামরিক সরঞ্জাম ধ্বংস করছেন। ভুলে নিজেদেরই যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করছেন রুশ সেনারা।

প্রেসিডেন্ট পুতিন এবং ইউক্রেনে রাশিয়ার সেনাদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের এমন দাবির পর এখনো কোনো মন্তব্য করেনি রুশ প্রতিরক্ষা দপ্তর ক্রেমলিন।