বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউক্রেনের বুচা শহরে রুশ বাহিনীর ‘নৃশংসতার’ চিত্র সামনে আসার প্রেক্ষাপটে মস্কোর বিরুদ্ধে নতুন করে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার আলোচনায় গত বুধবার ঘুরেফিরে মারিয়া ও কাতেরিনার নাম আসে।

দীর্ঘদিন ধরে রাশিয়ার ক্ষমতায় আছেন পুতিন। কিন্তু এই সময়ে তার সঙ্গে প্রকাশ্যে পরিবারের সদস্যদের খুব কমই দেখা গেছে। তাঁর পরিবারের সদস্যদের ছবিও তেমন একটা পাওয়া যায় না। পুতিনের দুই মেয়ের মা লিয়ুদমিলা। ২০১৩ সালে পুতিনের সঙ্গে তাঁর ছাড়াছাড়ি (ডিভোর্স) হয়।

২০১৫ সালে এক সংবাদ সম্মেলনে পুতিনের কাছে তাঁর মেয়েদের নাম-পরিচয় সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন, তাঁর দুই মেয়ে রাশিয়ায় বসবাস করেন। তাঁদের পড়াশোনাও রাশিয়ায়। তাঁরা তিনটি বিদেশি ভাষায় কথা বলতে পারেন।

এই সপ্তাহের শুরু দিকেই পুতিনের দুই মেয়ের নাম নিষেধাজ্ঞার তালিকায় যুক্ত করার ব্যাপারে একমত হয়েছিল ইইউর সদস্যদেশগুলো। তবে এটি কার্যকর হয়েছে শুক্রবার দিনের শেষ দিকে। পুতিনের দুই মেয়েসহ এ তালিকায় মোট ২১৭ জনের নাম আছে। এ নিয়ে রাশিয়ার ১ হাজার ৯১ জনকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হলো।

ইউক্রেনের ন্যাটো সামরিক জোটে যোগদানের পদক্ষেপকে নিজেদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি ঘোষণা দিয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে হামলা শুরু করে রুশ বাহিনী। এই যুদ্ধে ইউক্রেনকে অর্থ ও অস্ত্র দিয়ে সহযোগিতা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্রসহ ন্যাটো ও ইউরোপের দেশগুলো। পাশাপাশি রাশিয়ার বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে তারা।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন