এক ফেসবুক পোস্টে গেরাশচেনকো লিখেছেন, ‘ইউক্রেনে চলমান অভিযানে পুরোপুরি ব্যর্থতার জন্য পুতিন শোইগুকে কঠোরভাবে অভিযুক্ত করার পর তিনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়েছেন।’ শোইগু এখন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, শোইগুর হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর সম্পর্কে রাশিয়ার পক্ষ থেকে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার এক মাস গড়িয়েছে। এক দিকে যেমন ইউক্রেনের সেনাদের তীব্র প্রতিরোধের মুখে পড়ছে রুশ সামরিক বাহিনী, তেমনি ইউক্রেনের বিভিন্ন শহর রাশিয়ার বোমা হামলায় তছনছ হয়েছে। কিন্তু ইউক্রেনের বড় কোনো শহর এখনো দখলে নিতে পারেনি রাশিয়া। সম্প্রতি ইউক্রেন দাবি করেছে, যুদ্ধে প্রত্যাশিত সাফল্য না পাওয়ায় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তাঁর কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় সেনা জেনারেলকে বরখাস্ত করেছেন। সে জায়গায় নতুন জেনারেল নিয়োগ দিয়েছেন তিনি।
রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেনের সফলতা পাওয়ার দাবি করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। তারা বলেছে, কিয়েভের পূর্বাঞ্চলে ৩০ কিলোমিটার পিছু হটেছে রুশ বাহিনী।

গত বৃহস্পতিবার মার্কিন প্রতিরক্ষা নীতিমালাবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি কলিন কাহল বলেছেন, ইউক্রেনে হামলার কারণে রাশিয়া বিভিন্ন দিক থেকে দুর্বল হয়ে পড়বে। হামলার সিদ্ধান্তের জন্য একসময় রাশিয়াকে আফসোস করতে হবে বলে মনে করেন তিনি।
গতকাল শুক্রবার রাশিয়ার সেনাপ্রধান ভালেরি গেরাসিমভ বলেছেন, তাঁদের যুদ্ধের এখন প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চল। এ অঞ্চলের রুশপন্থী বিদ্রোহীরা স্বাধীনতার দাবিতে ইউক্রেনের সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে অনেক দিন ধরেই লড়াই করে আসছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন