default-image

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ‘হত্যাকারী’ বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মন্তব্য করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ক্রেমলিন। এই মন্তব্যের জেরে বাইডেনকে ‘লাইভ’ বিতর্কের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন পুতিন। সরাসরি সম্প্রচারিত বা অনলাইনে এই বিতর্কের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্টকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

গত বুধবার এবিসি নিউজকে একটি সাক্ষাৎকার দেন বাইডেন। অনুষ্ঠানে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি পুতিনকে ‘হত্যাকারী’ বলে মন্তব্য করেন। পুতিনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভানলিকে হত্যার জন্য বিষ প্রয়োগের নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। তবে পুতিন এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

সাক্ষাৎকারে বাইডেন আরও বলেন, পুতিনের কোনো হৃদয় নেই। যুক্তরাষ্ট্রের গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের জন্য পুতিনকে চরম মূল্য দিতে হবে।

ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে ২০২০ সালে মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। এই অভিযোগকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে অভিহিত করেছে ক্রেমলিন।

পুতিনকে নিয়ে বাইডেনের মন্তব্যের জেরে কয়েক বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে সবচেয়ে বড় সংকট দেখা দিয়েছে। ওয়াশিংটনে নিযুক্ত রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত আনাতলি আন্তনভকে বুধবারই দেশে ডেকে পাঠানো হয়। দুই দেশের মধ্যকার সাম্প্রতিক কূটনৈতিক সম্পর্কের ইতিহাসে এমন পদক্ষেপ অভূতপূর্ব।

বিজ্ঞাপন

বাইডেনের মন্তব্যকে ‘নজিরবিহীন’ হিসেবে বর্ণনা করেছে ক্রেমলিন। দুই দেশের মধ্যকার বর্তমান সম্পর্ককে ‘খুবই বাজে’ বলে ক্রেমলিন অভিহিত করেছে।

বাইডেনের মন্তব্যের জেরে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্র পেসকভ বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এটা খুবই বাজে মন্তব্য। আগে ইতিহাসে এমন ঘটনা ঘটেনি। বিষয়টি স্পষ্ট যে বাইডেন নিশ্চিতভাবে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চান না।

বাইডেনের মন্তব্য দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ককে কীভাবে প্রভাবিত করতে পারে, সে সম্পর্কিত প্রশ্নের জবাবে দিমিত্র পেসকভ বলেন, কীভাবে, তা খুবই স্পষ্ট। তবে এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত ব্যাখ্যা দিতে রাজি হননি।

বাইডেনের মন্তব্যে পুতিন নিজে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। তিনি গতকাল বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে আমাদের আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিচ্ছি। কিন্তু একটা শর্ত আছে। আমরা এই আলোচনা লাইভ বা অনলাইনে করব। আগে রেকর্ড করা আলোচনা নয়, আমাদের আলোচনা হবে মুক্ত ও সরাসরি।’

পুতিন বলেন, ‘আমার কাছ মনে হয়, এটি (সরাসরি আলোচনা) রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র উভয় দেশের জনগণের জন্য জবর হবে। পাশাপাশি অন্যান্য অনেক দেশের জন্যও আকর্ষণীয় হবে।’

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম তাস এক প্রতিবেদনে জানায়, পুতিন ইতিমধ্যে বাইডেনকে সরাসরি আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আলোচনার জন্য শুক্র বা সোমবার সম্ভাব্য দিনও প্রস্তাব করেছেন তিনি।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন