বার্লিনে করোনা বিরোধী বিতর্কিত সমাবেশ

বিজ্ঞাপন
default-image

গত শনিবার জার্মানির রাজধানী বার্লিনে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নেওয়া বিভিন্ন নিয়ম কানুনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশ ঘিরে জার্মানিজুড়ে সমালোচনা হচ্ছে। গত শনিবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধ বিধির বিরুদ্ধে প্রায় ১৭ হাজার মানুষ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

করোনাকালীন সময়ে নিয়ম মেনে মাস্ক না পরা ও দুরত্ব না মেনে মিছিল করার কারণে পুলিশ মিছিল সমাবেশ ভেঙে দেয় এবং এই সমাবেশের উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। পুলিশ ও সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, মিছিলকরীদের অধিকাংশই রক্ষণশীল বর্ণবাদী ও নব্য নাৎসি দল সুমূহের সমর্থক।

জার্মানি সরকারের করোনাভাইরাস বিরোধী বিধির বিরুদ্ধে সমাবেশ ও বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ সংযত, দুরত্ববিধি ও মাস্ক পরে বিক্ষোভ করবার কথা বললে বিক্ষোভকারীরা সহিংস হয়ে ওঠেন। তারা ১৮ জন পুলিশকে আহত করে এবং সাংবাদিকদের ওপর হামলা করে ও থুতু নিক্ষেপ করে।

রোববার রাজধানী বার্লিনের মেয়র মিশেল মুলার বিক্ষোভকারীদের সমালোচনা করে বলেছে, এই বিক্ষোভকরীরা বার্লিনে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে এবং সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। এই ধরনের অবিবেচক সমাবেশ আমাদের সবার জন্য ভয়ংকর বিপদ ডেকে আনতে পারে।

জার্মানিতে রোগীদের সুরক্ষার জন্য ফাউন্ডেশনের বোর্ড সদস্য ইউজেন ব্রাইশ করোনা মহামারিকে উপেক্ষা করে এই ধরনের বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়ান স্পান জানিয়েছেন, যে মুহূর্তে জার্মানিতে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা আবার বাড়ছে, তখন এই ধরনের বিক্ষোভের বিরুদ্ধে সবাইকে সমবেতভাবে প্রতিরোধের আহ্বান জানিয়েছেন।

default-image

করোনাভাইরাস বিরোধী বিধির বিরুদ্ধে এসব বিক্ষোভকারীরা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে, করোনাভাইরাস বিধি সমূহকে একটি বড় ধরনের ষড়যন্ত্র তত্ত্বের অংশ বলে প্রচার চালাচ্ছে। তারা বলছেন করোনাভাইরাস নিয়ে বিভিন্ন দেশের সরকার তাদের ক্ষমতা কুক্ষিগত করবার চেষ্টাসহ, বড় বড় ব্যবসায়ীরা নানা রকম ভ্যাকসিন তৈরির নামে বাণিজ্য প্রতিযোগিতায় নেমেছে।

জার্মানিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কয়েক সপ্তাহ ধরে নিয়ন্ত্রণে থাকলেও এখন আবার উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে বলে জানিয়েছে, জার্মানির সংক্রমণ রোগ বিষয়ের গবেষণা কেন্দ্র রবার্ট কক ইনস্টিটিউট। তারা জানিয়েছে, জুলাই মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত জার্মানি জুড়ে নতুন সংক্রমণের সংখ্যা প্রতিদিন ৫০০ থাকলেও সম্প্রতি তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রতিদিন ৬০০। তবে এখনো অবধি হাসপাতালগুলোতে গুরুতর অসুস্থ করোনার রোগীদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পায়নি বা করোনাভাইরাস জনিত কারণে মৃত্যুহারও বৃদ্ধি পায়নি।

জার্মানিতে এই পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছেন ২ লাখ ৯ হাজার ৬৫৩ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় ১ লাখ ৯২ হাজার ৭ শত মানুষ। আর মারা গেছেন ৯ হাজার ১৪৮ জন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন