default-image

মাদক পাচারকারী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোর–পুলিশ খেলা সময় ও স্থানভেদে অনেকটা একই। বিশ্বের সব প্রান্তে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে মাদক পাচারের নিত্যনতুন উপায় খুঁজে ফেরে মাদক ব্যবসায়ী ও পাচারকারীরা। দেশে দেশে পুলিশও তৎপর। মাদকের এই চোর–পুলিশ খেলায় মাঝেমধ্যে মজার ঘটনাও ঘটে।

এমনই এক ঘটনার সাক্ষী এবার ফ্রান্সের প্যারিসের পুলিশ। বড় আকারের মাদকের চালান জব্দের ঘটনা গণমাধ্যমে ঘটা করে জানায় এই শহরের পুলিশ। বাহবা কুড়ায় সবার। তবে পরীক্ষার পর দেখা যায়, উদ্ধার হওয়া বস্তু আসলে মাদক নয়। বরং এগুলো স্ট্রবেরি ক্যান্ডির গুঁড়া।

গত বুধবার প্যারিস পুলিশের সদর দপ্তর থেকে একটি টুইট করা হয়। এতে বলা হয়, প্যারিসের উপকণ্ঠে একটি প্যাকেজিং ওয়ার্কশপে সফল অভিযান চালিয়ে মাদকের একটি বড় চালান জব্দ করেছে পুলিশ। জব্দ করা মাদকের নাম এমডিএমএ। বিক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের কাছে এটি সংক্ষেপে মলি নামেও পরিচিত। এটা মানুষের শরীরে উদ্দীপনা তৈরি করে, শক্তি জোগায়। প্রশান্তির ভাব এনে দেয়। একবার গ্রহণের পর ৩০ মিনিট থেকে সর্বোচ্চ ৬ ঘণ্টা শরীরে এর রেশ থাকতে পারে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের টুইটে যুক্ত ছবিতে গোলাপি রঙের গুঁড়া ও একই রঙের কিছু ছোট ট্যাবলেট দেখা যায়। বলা হয়, উত্তর প্যারিসের সেইন্ট–ওয়েন এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে এসব মাদক জব্দ করা হয়েছে। এগুলোর আনুমানিক মূল্য প্রায় ১২ লাখ ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১২ কোটি টাকার বেশি)।

তবে এক দিনের মাথায় পুলিশের এ অর্জন জলে ভেসে যায়। স্থানীয় সরকারি কৌঁসুলির কার্যালয় জানায়, জব্দ করা উপকরণগুলো মাদক নয়। এমনকি এতে কোনো বিষাক্ত উপাদানও নেই। পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এগুলো নিছক স্ট্রবেরির গুঁড়া।

তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র বলেছে, স্ট্রবেরি ক্যান্ডির গুঁড়াগুলো জার্মানির জনপ্রিয় কনফেকশনারি হারিবোর তৈরি। এ প্রতিষ্ঠানের তৈরি স্ট্রবেরি ফ্লেভারের টাগাডা ক্যান্ডি বেশ জনপ্রিয়। অভিযান চালানো অ্যাপার্টমেন্টে কেউ এই ক্যান্ডি গুঁড়া করে রেখেছিল। পুলিশ সাধারণ ক্যান্ডির গুঁড়াকে ভয়ংকর মাদক ভেবে জব্দ করেছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন