এদিন এক বার্তায় পালামার বলেন, ‘প্রিয় ইউক্রেনবাসী, যিশুখ্রিষ্ট জেগে আছেন। আজ বড় একটি দিন। তবে এরপরও শত্রুপক্ষ ক্রমাগত বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে, জাহাজ থেকে গোলা ছুড়ছে, কামান দাগছে, শত্রুপক্ষের ট্যাংকগুলো ক্রমাগত আক্রমণ করে যাচ্ছে, পদাতিক বাহিনী হামলার চেষ্টাও চলছে।’

পালামার আরও বলেন, ‘যারা শুধু মুখের কথায় নয়, পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে মারিউপোলের বেসামরিক বাসিন্দাদের ওই বিপজ্জনক এলাকা ছাড়তে সহযোগিতার চেষ্টা করছে, তাদের আমরা ধন্যবাদ জানাতে চাই। যারা আমাদের সেনাদেরকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে বের করে আনার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে, তাদেরও ধন্যবাদ জানাতে চাই আমি। শত্রুবাহিনীর বিপুল উপস্থিতির কারণে এ সেনারা একা পড়ে গেছেন।’

আজভ রেজিমেন্টকে কখনো কখনো আজভ ব্যাটালিয়ন হিসেবেও উল্লেখ করা হয়। সেনাদলটি কট্টর জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবী ব্যাটালিয়ন হিসেবে যাত্রা শুরু করলেও পরে ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর সঙ্গে একত্রে কাজ শুরু করে।

মারিউপোলের অবরুদ্ধ আজভস্তাল স্টিল কারখানাটি ইউক্রেনীয় অন্য বাহিনীগুলোর মতো করে আজভ সেনাদেরও দখলে রয়েছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা মিখাইলো পোদোলিয়াক এর আগে বলেন, রোববার ইস্টার সানডেতে মারিউপোলের আজভস্তাল স্টিল কারখানা এলাকা ঘিরে ক্রমাগত হামলা চালিয়েছে রুশ বাহিনী।
ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, শহর থেকে প্রায় এক লাখ বেসামরিক নাগরিককে সরিয়ে নেওয়া প্রয়োজন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন