default-image

আগামী সোমবার থেকে যুক্তরাজ্যে লকডাউন পরিস্থিতি কিছুটা শিথিল করা হবে। খুলে দেওয়া হবে রেস্তোরাঁ ও কম গুরুত্বপূর্ণ দোকানপাট। দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এ কথা জানিয়েছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গতকাল সোমবার লকডাউন শিথিল করার বিষয়ে মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সেখানেই এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে বরিস সতর্কবার্তা উচ্চারণ করে এ-ও বলেছেন, ‘আমাদের আত্মতুষ্টিতে ভোগার সুযোগ নেই।’

ডাউনিং স্ট্রিটে সোমবার টেলিভিশনে প্রচারিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আগামী ১৭ মে থেকে লকডাউন শিথিলের পরবর্তী ধাপ শুরু হবে। ওই সময়ে সরকার আন্তর্জাতিক ভ্রমণ চালু করার বিষয়ে আশাবাদী। তবে একই সঙ্গে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চলায় সতর্কতাও জানান বরিস।

বিজ্ঞাপন

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ১২ এপ্রিল থেকে কম গুরুত্বপূর্ণ খুচরা বিক্রির দোকান, ব্যায়ামাগার, সেলুন ইত্যাদিও চালু করা হতে পারে। তবে এসব ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সতর্কতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাজ্যে সপ্তাহে পরপর দুবার করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষা করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী শুক্রবার থেকেই এ কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে যাতে মহামারি পরিস্থিতি আরও খারাপ না হয়, সেটি নিশ্চিত করতে এ পরিকল্পনা কাজে লাগবে। তবে সমালোচকেরা বলছেন, এই কর্মসূচিতে অর্থের অপচয় হওয়ার আশঙ্কা আছে।

যুক্তরাজ্যে সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১ লাখ ২৬ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সব মিলিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩ লাখের বেশি মানুষ।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন