default-image

দুটি আঞ্চলিক নির্বাচনে ভরাডুবির পর সংকটময় অবস্থায় আছে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের কনজারভেটিভ দল। জার্মানিতে সাধারণ নির্বাচনের ছয় মাস আগে মহামারি পরিচালনায় ব্যর্থতার তিরস্কার হিসেবেই এই ফলাফলকে দেখছেন বিশ্লেষকেরা।

জার্মানির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল বেডেন-উটটেমবার্গ ও রেইনল্যান্ড রাজ্যে ম্যার্কেলের সেন্টার-রাইট ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ) এবারই সবচেয়ে শোচনীয় পরাজয় বরণ করে।

জার্মানির স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো আগামী ২৬ সেপ্টেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টির জয়ের সম্ভাবনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

বিজ্ঞাপন

মূলত করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ম্যার্কেল সরকারকে ব্যর্থ মনে করছে জার্মানরা। জার্মানরা মনে করছে, ম্যার্কেল সরকার গণটিকা কার্যক্রম শুরু করতে দেরি করেছে। এ ছাড়া করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায়ও ব্যর্থ হয়েছে ম্যার্কেল প্রশাসন।

ম্যার্কেলের দলের সঙ্গে জোট বেঁধেছে সিএসইউ। সিএসইউ মহাসচিব মার্কাস ব্লুম রাজ্য সরকার নির্বাচনে এই ভরাডুবিকে ‘ওয়েকআপ কল’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি মনে করেন, জার্মানির সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক জোটকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে হলে জনগণের আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি বলেন, ‘আমাদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছ হতে হবে। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন