বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান যে প্রস্তাবনা তৈরি করেছেন, তা এএফপির হাতে এসেছে। সেখানে রাশিয়ার তেলের ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল হাঙ্গেরি ও স্লোভাকিয়াকে নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের জন্য বাড়তি সময় দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

এদিকে উরসুলা ফন ডার লিয়েনের প্রস্তাব নিয়ে আজই ইইউ জোটভুক্ত ২৭ সদস্য দেশের রাষ্ট্রদূতেরা আলোচনায় বসতে যাচ্ছেন। কারণ, ইইউর প্রস্তাব বাস্তবায়নের আগে সদস্য দেশগুলোকে ঐকমত্যে পৌঁছাতে হবে।

অবশ্য হাঙ্গেরি ও স্লোভাকিয়া আগেই বলে রেখেছে, রাশিয়া থেকে জ্বালানি আমদানি বন্ধে তারা ইইউর নিষেধাজ্ঞা সমর্থন করবে না। কারণ, রাশিয়া ছাড়া তাদের তেল-গ্যাস আমদানির তেমন বিকল্প দেশ নেই। এর মধ্যে হাঙ্গেরি চাহিদার ৬৫ শতাংশ তেল এবং ৮৫ শতাংশ গ্যাস রাশিয়া থেকে আমদানি করে থাকে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্তর অরবান রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন। এর কারণ হিসেবে তিনি বলে আসছেন, তাঁর দেশ রাশিয়ার তেল-গ্যাসের ওপর অত্যন্ত নির্ভরশীল।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন