সাড়া দিচ্ছেন নাভালনি

বিজ্ঞাপন
default-image

কোমায় থাকা রাশিয়ার বিরোধীদলীয় নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনি (৪৪) সাড়া দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন জার্মানির চিকিৎসকেরা। নাভালনি বার্লিনের দ্য চ্যারিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁর শরীরে বিষ প্রয়োগ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে রুশ সরকারের বিরুদ্ধে। রাশিয়ার চিকিৎসকেরা বিষ প্রয়োগের বিষয়টি নাকচ করলেও বার্লিনের চিকিৎসকেরা বলছেন, নাভালনির শরীরে বিষাক্ত নভিচক নার্ভ এজেন্টের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

সোমবার বার্লিনের ওই হাসপাতাল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, নাভালনিকে কৃত্রিম শ্বাসপ্রশ্বাস দেওয়া বন্ধ করা হয়েছে। তিনি এখন ডাকলে সাড়া দিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ২০ আগস্ট সাইবেরিয়ার টমসক শহর থেকে মস্কোর উদ্দেশ্যে উড্ডয়ন করেন নাভালনি। এরপরপরই উড়োজাহাজে তিনি অসুস্থ হয়ে পরেন। পরে তাঁকে অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়। এর কয়েক দিনের মাথায় রাশিয়ার চিকিৎসকদের বাধা উপেক্ষা করে চিকিৎসার জন্য তাঁকে জার্মানি নেওয়া হয়। রাশিয়ার চিকিৎসকদের ওই বাধা রাজনৈতিক বলে অভিহিত করেছিলেন নাভালনির স্ত্রী।

সোমবার নাভালনির মুখপাত্র কিরা ইয়ারমাস এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘গভীর কোমা থেকে আজ তাঁর উন্নতি হয়েছে। তিনি সাড়া দিচ্ছেন।’ চিকিৎসকেরা নাভালনির স্ত্রীর সঙ্গেও একান্ত যোগাযোগ রাখছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রুশ-জার্মান বাগ্‌যুদ্ধ

এদিকে নাভালনির ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার এক হাত নিচ্ছে জার্মানি। গত সপ্তাহে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, নাভালনিকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি একজন ভুক্তভোগী। বিশ্ব এ বিষয়ে রাশিয়ার জবাব প্রত্যাশা করছে।

বসে নেই জার্মান সাংসদেরাও। সোমবার দেশটির একজন জ্যেষ্ঠ আইন প্রণেতা বাল্টিক সাগরের তলদেশ দিয়ে যাওয়া রাশিয়ার গ্যাস পাইপলাইন দ্য নর্ড স্ট্রিম এর কাজ বন্ধ রাখার দাবি তুলেছেন। মূলত এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে ইউরোপে রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ বর্তমানের চেয়ে দ্বিগুণ করা সম্ভব হবে। সোমবার জার্মান সরকারের একজন মুখপাত্র বলেন, এত গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন তোলার পরও তিন-চার দিনে রাশিয়ার পক্ষ থেকে কোনো জবাব পাওয়া যায়নি। ওই কর্মকর্তা দাবি করেন, এই প্রকল্পের ব্যাপারে রাশিয়া তড়িঘড়ি করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নর্ড স্ট্রিমের ব্যাপারে সোমবার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ক্রেমলিন। রাশিয়ার জ্বালানি মন্ত্রী আলেক্সান্ডার নোভাক বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে বলেন, অবশ্যই চলমান প্রতিকূল সময়ের মধ্যেই এই প্রকল্পের কাজ শেষ করা হবে। এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, নাভালনির এই ঘটনার সঙ্গে রাশিয়াকে জড়ানো একবারে অগ্রহণযোগ্য ও অযৌক্তিক। এর আগে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জেখারোভা বলেন, নাভালনির শরীরে বিষ প্রয়োগের যে অভিযোগ করা হচ্ছে, তার কোনো প্রমাণ নেই।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার নাভালনি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের কট্টর সমালোচক। গত জুনে আরও দুই দফা ক্ষমতায় থাকার জন্য রাশিয়ার সংবিধান সংশোধন করেন পুতিন। তখন ওই ঘটনাকে ‘সংবিধান লঙ্ঘন’ উল্লেখ করে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন নাভালনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন