default-image

স্ত্রীকে হত্যা ও তাঁর শরীর পুড়িয়ে দেওয়ার দায়ে ফ্রান্সে এক ব্যক্তিকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বিবিসির আজ রোববারের খবরে জানা যায়, ২০১৭ সালের অক্টোবরে ফ্রান্সের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের গ্রে এলাকায় উডল্যান্ডের কাছে অ্যালেক্সিয়া দাভাল নামের এক নারীর পুড়ে যাওয়া শরীর পাওয়া যায়।

অ্যালেক্সিয়ার স্বামী জোনাথন দাভাল পুলিশকে জানিয়েছিলেন, তাঁর স্ত্রী জগিং করতে যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ। পরে তিনি স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা ও তাঁর শরীর পুড়িয়ে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার রায় পড়ে শোনানো হয়। আদালতে অ্যালেক্সিয়ার স্বামী তাঁর স্ত্রীর মা-বাবার দিকে তাকান। তিনি তাঁদের কাছে দুঃখপ্রকাশ করেন।

অ্যালেক্সিয়া দাভাল ছিলেন একজন ব্যাংকার। তাঁর বয়স ছিল ২৯ বছর। ২০১৭ সালের অক্টোবরে স্বামী অ্যালেক্সিয়া নিখোঁজ হওয়ার খবর জানান। স্বামী জানান, অ্যালেক্সিয়া জগিংয়ে যাওয়ার পর থেকে আর ফিরে আসেননি। দুই দিন পর অ্যালেক্সিয়ার মরদেহ খুঁজে পাওয়া যায়। মৃতদেহটির আংশিক পুড়ে গিয়েছিল। বনের মধ্যে মৃতদেহটি লুকিয়ে রাখা হয়েছিল। কিন্তু বনের দিকের ওই পথ অ্যালেক্সিয়ার জগিংয়ের রাস্তা ছিল না।
অ্যালেক্সিয়ার মৃত্যুর পর শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে দুঃখপ্রকাশ করেন তাঁর স্বামী। তবে তিন মাস পর আইন কৌঁসুলিরা জানান, স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন স্বামী। প্রথমে স্ত্রীর শরীর পুড়িয়ে দেওয়ার কথা অস্বীকার করলেও গত বছর তিনি তা স্বীকার করেন।

মামলা চলাকালে অ্যালেক্সিয়ার স্বামী বেশ কয়েকবার ঘটনার বর্ণনা বদলান।

মন্তব্য পড়ুন 0