default-image

স্পেনে একটি পোশাক কারখানার গোপন কুঠুরি থেকে ২১ অভিবাসী শ্রমিককে উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ বলছে, এই অভিবাসীদের সেখানে দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করতে বাধ্য করা হতো। খবর বিবিসির।

এ ঘটনায় প্রকাশিত কিছু ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, স্তূপ করে রাখা কাপড়ের বড় বড় ট্রলির আড়ালে এক গোপন কুঠুরি থেকে কিছু অভিবাসীকে বের করে আনা হচ্ছে।  

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় দক্ষিণ–পূর্বাঞ্চলীয় মুরসিয়া প্রদেশের ওই কারখানা পরিচালনাকারী এক ব্যক্তি ও তাঁর দুই ছেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কারখানাটি থেকে আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে পোশাক সরবরাহ করা হতো।

স্পেন কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলেছে, এই অভিবাসীদের নাজুক পরিবেশের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জোর করে কাজ করানো হতো। অথচ দেওয়া হতো কম মজুরি। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে তল্লাশি চালাতে গেলে কারখানার ব্যবস্থাপক ওই কর্মীদের দৌড়ে পালাতে বলেন। এ সময় চারজন কারখানার বেষ্টনী টপকে পালানোর চেষ্টা করেন। অন্যদের কারখানার গুদামঘরের গোপন কুঠুরি থেকে পাওয়া যায়।
উদ্ধার অভিবাসীরা জানান, পুলিশ এলে তাঁরা যাতে লুকাতে পারেন, সে জন্য গোপন কুঠুরিটি বানানো হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ বলেছে, গ্রেপ্তার তিনজন জানিয়েছেন, কোনো আইনি সুরক্ষা ছাড়া ও অনিয়মিত ভিত্তিতে এই কারখানায় বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ দিতেন তাঁরা। পরে দীর্ঘ সময় তাঁদের কাজ করতে বাধ্য করতেন। এ ক্ষেত্রে তাঁদের দুরবস্থা ও আর্থিক অনটনকে তাঁরা ব্যবহার করতেন।

এই অভিবাসীদের নাজুক পরিবেশের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জোর করে কাজ করানো হতো। অথচ দেওয়া হতো কম মজুরি। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে তল্লাশি চালাতে গেলে কারখানার ব্যবস্থাপক ওই কর্মীদের দৌড়ে পালাতে বলেন।

সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়, কারখানাটিতে কোনো রকম নিরাপত্তামূলক ও স্বাস্থ্যসম্মত ব্যবস্থা ছিল না। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের কার্টাগেনার আদালতে পাঠানো হবে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন