বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এরপর স্পেনের সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, দেশটির প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্গারিতা রোবেলসের মুঠোফোনে পেগাসাস স্পাইওয়্যার শনাক্ত করা হয়েছে। এরপরই প্রধানমন্ত্রীসহ আইনপ্রণেতাদের মুঠোফোনে নজরদারির বিষয়ে কংগ্রেসে শুনানির জন্য হাজির হতে বলা হয়ে এস্তেবানকে।

স্পেনের গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্স সেন্টারের গোয়েন্দা কর্মকর্তা এস্তেবান ২০২০ সালে দেশটির গোয়েন্দাপ্রধান হিসেবে নিয়োগ পান। নজরদারি চালানোর বিষয়ে কংগ্রেস কমিটির সামনে শুনানিতে হাজির হন এস্তেবান। শুনানিতে উপস্থিত আইনপ্রণেতারা বলেন, কাতালান স্বাধীনতার পক্ষের ১৮ ব্যক্তির ফোনে নজরদারি চালানোর কথা স্বীকার করেন তিনি। তবে এগুলো আদালতের নিয়মের মধ্যে থেকেই করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

তবে এর বাইরে প্রধানমন্ত্রীসহ অন্য যাঁদের ফোনে নজরদারি করা হয়েছে, তার কোনো ব্যাখ্যা তিনি দিতে পারেননি। নজরদারির বাকি ঘটনাগুলোর বিষয়ে স্পেন সরকারের পক্ষ থেকেও কোনো ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি। তবে তারা বলেছে, পুরো বিষয়টির তদন্ত করছে। যদিও দেশটিতে প্রধানমন্ত্রীর ফোনে নজরদারির বিষয়টি নিয়ে অস্বস্তি বাড়ছে।

ইআরসি নেতা ওরিওল জাঙ্কেরাস বলেন, সরকার নজরদারির দায় না নিলে তার দল সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করবে।

দলটির আইনপ্রণেতা গ্যাব্রিয়েল রুফিয়ান দেশটির গোয়েন্দাপ্রধান এস্তেবানকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত সমর্থন করে বলেন, এটা যৌক্তিক হয়েছে। এখন কিছু নথি সামনে আনলে এবং তদন্ত কমিটি গঠন করলে তা আরও ভালো হবে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন