উড়োজাহাজের পাখায় হেঁটেছিলেন এই নারী
উড়োজাহাজের পাখায় হেঁটেছিলেন এই নারীছবি: ইনস্টাগ্রাম

উফ, বড্ড গরম! একটুখানি হাওয়া না খেলেই নয়। তিনি করলেন কী, হাওয়া খেতে উড়োজাহাজের পাখায় গিয়ে উঠলেন। সংগত কারণেই কর্তৃপক্ষের কাছে তাঁর এই ব্যতিক্রমী হাওয়া খাওয়া ভালো ঠেকেনি। তাই উড়োজাহাজ ভ্রমণে কালো তালিকায় নাম চলে গেল। ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের উড়োজাহাজে ঘটেছে এমন ঘটনা। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে উড়োজাহাজ থেকে নামার পর এমন কাণ্ড ঘটান তিনি।

‘দ্য সান’-এর বরাত দিয়ে এনডিটিভি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, তুরস্ক থেকে ইউক্রেনের কিয়েভে পৌঁছানোর পর এক নারী এমন কাণ্ড করেন। তিনি বলেন, বোয়িং ৭৩৭-৮৬ এন উড়োজাহাজটি অবতরণের পর গরম থেকে রেহাই পেতে তিনি জরুরি নির্গমন পথ দিয়ে পাখার ওপর চলে যান। খোলা বাতাসে কিছুক্ষণ থাকার জন্য এমনটি করেছেন।

বিজ্ঞাপন

উড়োজাহাজের আরেক যাত্রী লেদবিবেল বলেন, ‘উড়োজাহাজ অবতরণের পর ওই নারী জরুরি নির্গমন পথের দরজা খুলে বেরিয়ে যান। তিনি উড়োজাহাজের পাখার পুরো অংশটিতে হেঁটেছিলেন। এর মধ্যে ওই নারীর দুই সন্তান উড়োজাহাজ থেকে নেমে যায়। তারা আমার কাছেই ছিল। এমন কাণ্ড দেখে তারাও অবাক হয়ে যায়। তারা বলে, “ওই তো আমাদের মা”।’

উড়োজাহাজ অবতরণের পর ওই নারী জরুরি নির্গমন পথের দরজা খুলে বেরিয়ে যান। তিনি উড়োজাহাজের পাখার পুরো অংশটিতে হেঁটেছিলেন। এর মধ্যে ওই নারীর দুই সন্তান উড়োজাহাজ থেকে নেমে যায়। তারা আমার কাছেই ছিল। এমন কাণ্ড দেখে তারাও অবাক হয়ে যায়। তারা বলে, “ওই তো আমাদের মা”
লেদবিবেল,উড়োজাহাজের আরেক যাত্রী


সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ফুটেজে দেখা যায়, ওই নারী উড়োজাহাজের পাখার ওপর ঢিলেঢালাভাবে হাঁটছিলেন। কিয়েভের বরিস্পিল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে। ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনস (ইউআইএ) বলছে, ওই নারীকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ইউআইএর পক্ষ থেকে বলা হয়, বিমানের সুরক্ষাবিধি ও নিয়ম ভাঙার জন্য ওই যাত্রীকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষের দাবি, এ জন্য ওই নারীকে চড়া মূল্যের জরিমানা দিতে হবে ।

এমন আচরণের যথার্থ কোনো ব্যাখ্যা দিতে পারেননি ওই নারী। শুধু বলেছেন, উড়োজাহাজের ভেতরে তিনি গরমে অতিষ্ঠ ছিলেন। তবে পরীক্ষা করে দেখা গেছে তিনি নেশাগ্রস্ত ছিলেন না।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন