হিথরো বিমানবন্দরে করা যাবে করোনার পরীক্ষা

যুক্তরাজ্যের লন্ডনের হিথরো বিমানবন্দর থেকে হংকং ও ইতালিগামী যাত্রীরা চেকইন করার আগে চাইলে বিমানবন্দরে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করাতে পারবেন। এর জন্য গুনতে হবে ৮০ পাউন্ড। এক ঘণ্টার মধ্যেই পাওয়া যাবে এ পরীক্ষার ফল। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

যেসব দেশে পৌঁছানোর পর যাত্রীদের কোভিড টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট লাগে, তাদের সহায়তা করতেই এই উদ্যোগ। বিভিন্ন দেশ যুক্তরাজ্যকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে গণ্য করছে। এর অর্থ, দেশটি থেকে বিদেশগামী ব্যক্তিরা ব্যাপক বিধিনিষেধের মুখে পড়তে পারেন। হংকং কর্তৃপক্ষ এখন লন্ডন থেকে আসা যাত্রীদের কাছে যাত্রা শুরুর আগের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট দেখতে চাইছে।

মুখের লালা থেকে এ পরীক্ষা করা হবে। এটি ল্যাম্প টেস্ট নামে পরিচিত। ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ, ভার্জিন আটলান্টিক ও ক্যাথে প্যাসিফিক তাদের যাত্রীদের এই পরীক্ষার প্রস্তাব দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

এয়ারলাইনস ইউকের এভিয়েশন ট্রেড বডির প্রধান নির্বাহী টিম আলডারস্লেড বলেন, তিনি মনে করেন, পরীক্ষার ফি কমানো উচিত। তিনি বলেন, ‘বিজনেস ক্লাসের যাত্রীদের জন্য ৮০ পাউন্ড কিছুটা ব্যয়সাপেক্ষ। আমরা সরকারকে বলেছি, যুক্তরাজ্যে আসা সব যাত্রীরই করোনা পরীক্ষা করা উচিত। এ ক্ষেত্রে ফি রাখা উচিত ৫০-৬০ পাউন্ড।’

পিসিআর টেস্টের তুলনায় ল্যাম্প টেস্টে দ্রুত ফল পাওয়া যায়। যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ব্যাপকভাবে এই পদ্ধতি ব্যবহার করছে। কারণ, এই পরীক্ষায় নমুনা পরীক্ষাগারে পাঠাতে হয় না। অ্যান্টিজেন টেস্টের চেয়ে ল্যাম্প টেস্টকে অনেক বেশি কার্যকর বলেও ধরা হয়।

হিথরো বিমানবন্দরে এই উদ্যোগ নেওয়া প্রতিষ্ঠানটির নাম কোলিনসন। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ডেভিড ইভানস বিবিসিকে বলেন, যাত্রীদের এক ঘণ্টা আগে এলেই হবে। পরীক্ষাটি করিয়ে নিলে যাত্রীদের মধ্যে ভ্রমণ নিয়ে দুশ্চিন্তা দূর হবে। কারণ, তাঁরা করোনামুক্ত ফ্লাইটে যাত্রা করবেন।

মন্তব্য পড়ুন 0