বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ৫৮ বছর বয়সী ওই অন্ধ ব্যক্তি ৪০ বছর ধরে রেটিনাইটিস পিগমেনটোসা নামে স্নায়ুজনিত চক্ষুরোগে ভুগছিলেন। এতে চোখের ফটোরিসেপ্টরগুলোর ক্ষতি হওয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি সম্পূর্ণ অন্ধ হয়ে যেতে পারে।

বিজ্ঞানীরা চোখের রেটিনা কোষকে পুনঃ প্রোগ্রাম করতে এক ধরনের জিন থেরাপি ব্যবহার করেছেন।

গবেষণাসংক্রান্ত নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে নেচার মেডিসিন সাময়িকীতে। গবেষকেরা বলছেন, এ থেরাপি ব্যবহারে চশমা পরা অবস্থায় কোনো বস্তু শনাক্ত, অবস্থান নির্ণয় বা গণনা করতে পারেন রোগী। ঘরের ব্যবহার্য জিনিসপত্র শনাক্ত করতে পারেন।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষুবিজ্ঞানের অধ্যাপক রবার্ট ম্যাকলারেন বলেন, ‘জিন থেরাপি ব্যবহার করে বিজ্ঞানীরা আংশিক দৃষ্টিশক্তি ফেরাতে পেরেছেন। এটা উল্লেখযোগ্য মাইলফলক। ভবিষ্যতে এই পদ্ধতি আরও পরিমার্জন করা গেলে তা রোগীর জন্য অপটোজেনেটিক থেরাপিকে একটি কার্যকর বিকল্প হিসেবে পরিণত করবে।’

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন