default-image

জার্মানির একটি খামারের প্রায় ৭০ হাজার মুরগি মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। দেশটির মেক্লেনবার্গ-ভোরপমমার্ন রাজ্যের পূর্বাঞ্চল ল্যান্ডক্রেইস রোস্টকের স্থানীয় প্রশাসন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, রোস্টকের পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে একটি মুরগির খামারে বার্ড ফ্লুর প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই খামারে এইচ৫এন৮ ধরনের বার্ড ফ্লুর উপস্থিতি পাওয়া গেছে। খামারটিতে প্রায় ৪ হাজার ৫০০টি মুরগি আছে। শুরুতে সেগুলোকে মেরে ফেলা হবে। তবে আরও বেশ কটি জায়গায় খামারটির শাখা আছে। সব মিলিয়ে খামারের প্রায় ৭০ হাজার মুরগিকে মেরে ফেলতে হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় প্রশাসনের এক মুখপাত্র বলেন, এই রোগের প্রাদুর্ভাবের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং আরও ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। পশু চিকিৎসকেরা বলছেন, বিভিন্ন স্থানে থাকা খামারটির প্রায় ৭০ হাজার মুরগি মেরে ফেলাটা জরুরি।
কয়েক সপ্তাহ ধরে ইউরোপে বার্ড ফ্লুর প্রাদুর্ভাব লক্ষ করা যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, বন্য পাখির মধ্যে এই রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। তবে রয়টার্স বলছে, এই বার্ড ফ্লু মানুষের জন্য খুব একটা ঝুঁকিপূর্ণ নয়।

এর আগে বার্ড ফ্লুর উপস্থিতি পাওয়ার পর জার্মানির একই রাজ্যের অন্য আরেকটি খামারে ১৬ হাজার ১০০টি টার্কি হত্যা করা হয়েছিল। গত সোমবার সেখানকার প্রশাসন এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

এদিকে ডেনমার্কে একই ধরনের বার্ড ফ্লুর উপস্থিতি পাওয়ার পর প্রায় ২৫ হাজার মুরগি মেরে ফেলার নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। তিন মাস ধরে ডেনমার্ক থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের দেশগুলোতে পোলট্রি ও ডিম পাঠানো বন্ধ রয়েছে। একই অবস্থা নেদারল্যান্ডস ও ফ্রান্সেরও। ইংল্যান্ডের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের একটি খামারকে ১৩ হাজার পাখি মেরে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0