বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দ্য ইউরোপীয় মেডিসিনস এজেন্সি স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার ১২ থেকে ১৫ বছর বয়সী শিশুদের জন্য ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকার অনুমোদন দেবে বলে আশা করছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নে ১৬ বছরের বেশি বয়সীদের প্রয়োগের জন্য এই টিকা এর মধ্যেই অনুমোদন পেয়েছে।

জার্মানির আঞ্চলিক নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পরে ম্যার্কেল বলেন, আগামী ৭ জুন থেকে ১২ বছরের বেশি বয়সী শিশুরা টিকার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে পারবে। যারা টিকা নিতে ইচ্ছুক, তারা আগস্টের মধ্যে প্রথম দুই ডোজ টিকা নিতে পারবে। স্কুলের নতুন বছর শুরুর আগেই শিশুদের এই টিকা দেওয়া সম্ভব হবে।

সাংবাদিকদের ম্যার্কেল আরও বলেন, ‘অভিভাবকদের বলতে চাই, শিশুদের টিকা দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়। টিকা দেওয়ার পরই শিশুরা স্কুলে যেতে পারবে, বিষয়টি এমন নয়। শুধু টিকা দেওয়া হয়েছে এমন শিশুদের নিয়ে অবকাশকালীন ভ্রমণে যাওয়া যাবে, এ রকম কোনো নিয়মও নেই।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটি তৈরির পথে এক ধাপ এগোতেই শিশুদের টিকা দেওয়া হবে।

কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে ১২ বছরের বেশি বয়সীদের এর মধ্যেই টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিশুদের গুরুতর পর্যায়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমই হয়। টিকার সরবরাহ এখনো পর্যাপ্ত নয়।

জার্মানিতে ৪০ শতাংশের বেশি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন। ১৫ শতাংশ মানুষ টিকার দুটি ডোজই পেয়েছেন।

করোনা পরীক্ষা ও কঠোর বিধিনিষেধের কারণে জার্মানিতে সংক্রমণ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। এটিকে বড় ধরনের সফলতা মনে করছেন ম্যার্কেল। তবে তিনি সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক পরার মতো নিয়ম মেনে চলতে আহ্বান জানিয়েছেন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন